রোবট গড়ছে পৌরাণিক ভাস্কর্য|110431|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৮:৩১
রোবট গড়ছে পৌরাণিক ভাস্কর্য
জাহিদ রুমান

রোবট গড়ছে পৌরাণিক ভাস্কর্য

ভাস্কর্য গড়ছে রোবট। ছবি: সংগৃহীত

গ্রিক পুরাণের কাহিনী ঘিরে নির্মিত ‘লাইকুন ও তার পুত্ররা’ পৃথিবীতে ধ্রুপদী ভাস্কর্যের মধ্যে অন্যতম। পাঁচ শতাব্দী আগে ১৫০৬ সালে মার্বেল পাথরের এ মূর্তি প্রথম প্রদর্শিত হয়। অনুপম এই শিল্পকর্ম দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছেন রেঁনেসা যুগের মাইকেল অ্যাঞ্জেলো বা তিতিয়ান থেকে শুরু করে উইলিয়াম ব্লেক ও রিচার্ড ডেকনের মতো বিখ্যাত শিল্পী ও ভাস্কর। এবার নতুন করে শতাব্দীপ্রাচীন সেই মূর্তি গড়তে চলেছে একটি রোবট।

অবিশ্বাস্য শোনালেও এমন উদ্যোগ নিয়েছেন লন্ডনের ভিজ্যুয়াল আর্টিস্ট ডেভিড কোয়াওলা। হাতে শাবল তুলে নেওয়ার বদলে তিনি এমন একটি রোবট প্রোগ্রামিং করেছেন সেটি নিপুণভাবে ভাস্কর্য গড়ায় সক্ষম।

বর্তমানে ভ্যাটিকেন সিটিতে থাকা‘লাইকুন ও তার পুত্ররা’ভাস্কর্যে দেখা যায়, তিনজন পুরুষের প্রতিকৃতি এবং তাদের ওপর সাপের উদ্ধত ফণা। মার্বেল পাথরের ওপরে রোবটটি এমনভাবে খোদাই করছে তাতে ফুটে উঠবে মূল মূর্তির রূপ।

ডেভিড কোয়াওলার ভাষ্য, প্রকৃতপক্ষে এটি একটি সমৃদ্ধির প্রতীক এবং উৎকর্ষের চিহ্ন, যা হাজার বছর ধরে আমাদের অনুপ্রাণিত করছে। প্রযুক্তির সঙ্গে পরীক্ষণ শিল্পে নতুন কিছু নয়, সেই রেঁনেসার সময় থেকেই এর অস্তিত্ব দেখা যায়।

তিনি বলেন, আমি দেখতে খুব ইচ্ছুক যে, অতি পরিচিত জিনিসটি মেশিনের চোখে কেমন রূপ নেয়। মাইকেল অ্যাঞ্জেলোকে উদ্ধৃত করে ডেভিড কোয়াওলা আরও বলেন, পাথরের প্রত্যেক ব্লকেই একটি ভাস্কর্য রয়েছে, তা আবিষ্কার করাই শিল্পীর কাজ। সূত্র: সিএনএন।