বইপ্রেমিদের ৮ মজার অভ্যাস|110526|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৬ নভেম্বর, ২০১৮ ১৭:০২
বইপ্রেমিদের ৮ মজার অভ্যাস
অনলাইন ডেস্ক

বইপ্রেমিদের ৮ মজার অভ্যাস

এমন অনেক মানুষ আছেন যাদের কাছে বই সবকিছু। বই নিয়ে তারা কাটিয়ে দেন জীবনের অনেকটা সময়। বই তাদের ধ্যান-জ্ঞান, ভালোবাসা। এসব বইপ্রেমির রয়েছে আটটি মজার অভ্যাস-

তাদের ভালোবাসা চিরন্তন: রোমিও’র কাছে জুলিয়েট যেমন, বইপ্রেমিদের কাছে বইও ঠিক তেমন। রোমিও-জুলিয়েটের গভীর প্রেমের সঙ্গে বইপ্রেমিদের প্রেমের মিল রয়েছে। বইয়ের প্রতি বইপ্রেমিদের ভালোবাসা নিখাদ। এখানে লোক দেখানোর ব্যাপার নেই। যদিও তারা ভিন্ন ভাষা, ধর্ম ও দেশের নাগরিক, তবু তারা একই জিনিসকে ভালোবাসেন। বইয়ের প্রতি তাদের এ ভালোবাসা চিরন্তন।

বই দিয়ে যায় চেনা: কার বাসায় কোন বই আছে বা কোন বই নিয়ে কথা বলছেন কেউ, তা দিয়ে বইপ্রেমিরা ব্যক্তির চরিত্র বিচার করে। এর মাধ্যমে তারা বন্ধুর মানসিক সক্ষমতাও যাচাই করেন। কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলার ধরনের ওপরও তারা বিচার করে যে ওই ব্যক্তি কোন বইটি পড়েছেন। যখন কেউ একজন বইপ্রেমিকে বলেন যে, তিনি তার প্রিয় লেখকের ভক্ত নন অথবা প্রিয় উপন্যাসটি পছন্দ করেন না- তখন দেখা যায় বইপ্রেমিদের মুখের অভিব্যক্তি কতটা কঠোর হতে পারে।

নিজের বই ভাগাভাগি না করা: অনেকের যেমন খাবার ভাগ করে খাওয়া অপছন্দ, তেমনি বইপ্রেমিরাও নিজের বইয়ের ভাগ কাউকে দিতে চান না। গ্রন্থানুরাগীদের বুকশেলফ তাদের গর্ব। এটা অমূল্য। সাধারণত যখন কেউ কাছে বই ধার চান তারা মিথ্যা বলেন। নিজের বইয়ে কারও হাতের ছাপ লাগুক এটা তারা ভাবতেও পারেন না। তারা খুঁতখুঁতে স্বভাবের। কোনও কিছুর বিনিময়ে তাদের বই ধার দিতে প্রভাবিত করা যায় না।

প্রকাশের প্রথম দিনেই বই সংগ্রহ: দীর্ঘপথ পাড়ি দেওয়া এবং বা দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে প্রিয় লেখকের সর্বশেষ প্রকাশিত বইটি তারা সংগ্রহ করেন। এ কষ্টকে তারা কষ্ট মনে করেন না। এতে তাদের কোনও আপত্তি থাকে না। প্রকাশের প্রথমদিনেই প্রিয় বইটি সংগ্রহ করাটা নিজেদের দায়িত্ব মনে করেন বইপ্রেমিরা।

পড়া শেষে কান্না: বইপ্রেমিরা গল্প বা উপন্যাস শেষ হলে দীর্ঘশ্বাস ছাড়েন। এ আবেগ প্রকাশ করে তারা বইটিকে খুব ভালোবেসেছে। তার চাওয়া গল্পটি যেন শেষ না হয়। বইটি পড়তে গিয়ে এর চরিত্র কাল্পনিক জেনেও তার সঙ্গে যে সম্পর্ক তৈরি হয়, তা শেষ হয়ে যাচ্ছে ভেবেই মূলত এমন কষ্ট পাওয়া।

বই বনাম চলচ্চিত্র বিতর্ক: কোনও সমালোচক হয়তো বলবেন, বইয়ের গল্প অবলম্বনে নির্মিত চলচ্চিত্র মূল বই থেকে ভালো হয়েছে। কিন্তু একজন বইপ্রেমি তা মানতে চাইবেন না। এমন ধরনের বলার কারণে বইপ্রেমিরা সমালোচকের ওপর খুব বিরক্ত হবে। এমনকি তাদের সঙ্গে সম্পর্ক অবনতি হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

ঘরকুনো: বইপ্রেমিরা মাঝেমাঝে বাড়িতে থাকতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। ঘোরাঘুরির জন্য চমৎকার একটি দিনও তারা বাতিল করেন শুধু বই পড়ার জন্য। এর মানে এই নয় যে, বইপ্রেমিরা সামাজিকভাবে নিষ্ক্রিয়। তারা সামাজিক যোগযোগ বজায় রাখলেও ঘরে বসে বই পড়ার সুযোগ খোঁজেন সবসময়। চলচ্চিত্রপ্রেমিরাও তাদের মতো ঘরে থাকতে পছন্দ করেন।

মজুতদার: বইপ্রেমিরা যেন মজুতদার। তাদের সংগৃহীত বইয়ের সংখ্যা যতই হোক না কেন, তারা আরও কিনতে চান। কোনও বইয়ের দোকানে গিয়ে একাধিক বই না কিনে তারা ফিরে আসতে পারেন না।