মনোনয়নপত্র আনতে যাওয়ার পথে সংঘর্ষে নিহত ২|110572|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১০ নভেম্বর, ২০১৮ ১৮:৫৮
নানক-সাদেক বিরোধ
মনোনয়নপত্র আনতে যাওয়ার পথে সংঘর্ষে নিহত ২
নিজস্ব প্রতিবেদক

মনোনয়নপত্র আনতে যাওয়ার পথে সংঘর্ষে নিহত ২

নিহত সুজনের বোন সুরমাকে জড়িয়ে ঢাকা মেডিকেলে মা সুলতানার আহাজারি। ছবি: দেশ রূপান্তর

দলীয় মনোনয়নপত্র কেনা নিয়ে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় পিকআপ চাপায় দুই কিশোর নিহত হয়েছেন। শনিবার সকালে নবোদয় হাউজিংয়ের লোহার গেট এলাকায় এঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত সুজন (১৮) ও আরিফ (১৫) পেশায় রাজমিস্ত্রি ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঢাকা-১৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) জাহাঙ্গীর কবির নানক এবং ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক ও একই আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাদেক খানের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

মিছিল নিয়ে মনোনয়নপত্র আনতে যাওয়ার পথে নবোদয়ের পাশাপাশি আদাবরের ১০ ও ১৬ নম্বর সড়ক, শম্পা মার্কেট এলাকা এবং উত্তর আদাবরের সুনিবিড় হাউজিংয়েও একই সময়ে সংঘর্ষ বাঁধে। এসব ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

নিহত সুজনের বন্ধু রাজমিস্ত্রি নূরুল আলম দেশ রূপান্তরকে জানান, সকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ‘বড়ভাই’ নুর আলম একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার দাওয়াত দেন। এজন্য তারা ১০/১২ জন কিশোর বন্ধু মিলে নবোদয় হাউজিংয়ের লোহার গেট এলাকায় যান। সেখানে একটি পিকআপে উঠেন তারা।

কিছুক্ষণ পর কারা যেন পিকআপে ঢিল ছুঁড়তে থাকে। ভয় পেয়ে পিকআপ থেকে সবাই হুড়োহুড়ি করে নামার চেষ্টা করেন। এসময় চালক পিকআপটিকে পিছনের দিকে নিয়ে যেতে থাকেন। একপর্যায়ে কয়েকজন পড়ে গেলে পিকআপটি সুজন ও আরিফের উপর দিয়ে চলে যায়।

তিনি জানান, পরে সুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সুজন নবীনগর হাউজিংয়ের ১০ নম্বর সড়কে থাকতেন। তার বাবার নাম রুহুল আমিন। নিহত আরিফের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

নূরুল আমিন জানান, এ ঘটনায় আহত কয়েজনকে রিকশায় অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মনোনয়ন প্রত্যাশী সাদেক খানের সমর্থকরা শনিবার সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকার সমর্থকদের জড়ো করে। আবাহনী মাঠে যাওয়ার কথা ছিল তাদের। সেখান থেকে মনোননয়নপত্র কেনার জন্য যাত্রা শুরু করার কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই নানকের সমর্থকরা সাদেক খানের সমর্থক বহনকারী পিকআপ লক্ষ করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে এ ঘটনা ঘটে।

মোহাম্মপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জামাল উদ্দিন মীর জানান, আহত আরিফ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে মারা যায়। ঘটনার বিস্তারিত জানার জন্য পুলিশ কাজ করছে।