মনোনয়নপত্র বাতিল ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’: ইমরান|110921|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:২৪
মনোনয়নপত্র বাতিল ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’: ইমরান
নিজস্ব প্রতিবেদক

মনোনয়নপত্র বাতিল ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’: ইমরান

ভোটারদের এক শতাংশ সমর্থনে ঘাটতি থাকার অভিযোগকে ‘অজুহাত‘ আখ্যা দিয়ে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার বলেছেন, তার মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল সংক্রান্ত খোঁজখবর নিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘যে অজুহাতে আমার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে, তাহলে আমার মনে হয় না কারও মনোনয়ন টিকবে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে যারা মনোনয়ন দাখিল করেছিল, তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে বিভিন্ন অজুহাতে।’

নির্বাচনে প্রার্থী হতে হলে সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী আসনের মোট ভোটারের ন্যূনতম ১ শতাংশ সমর্থন থাকতে হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে কুড়িগ্রাম-৪ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী ইমরান এইচ সরকারের সেই সমর্থন নেই জানিয়ে তার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।

অভিযোগ বিষয়ে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবিতে গড়ে ওঠা আলোচিত আন্দোলনের নেতা ইমরান এইচ সরকার বলেন, সিইসি বলেছিলেন, তিনি মাইনর ত্রুটি গণনা করবেন না। অথচ ত্রুটি সংশোধনের সুযোগ দেওয়া হয়নি।

তিনি বলেন, ‘দাখিলের সময় বলেছিলাম, আমি  প্রয়োজনের চেয়ে বেশি দাখিল করি। যদি দুই একটা কম-বেশি হয়। সেটা কিন্তু তারা নেয়নি। তাৎক্ষণিক সংশোধনের সুযোগ ছিল, সেটাও তারা আমাকে দেয়নি। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

গতকাল ২ ডিসেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের শেষ দিনে সারা দেশে দাখিল করা ৩ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর ৭৮৬টি মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। নির্বাচনে অংশ নিতে এরইমধ্যে আপিল করতে শুরু করেছেন বাতিল হওয়া মনোনয়নপ্রত্যাশীরা।

অবৈধ ঘোষিত মনোনয়নপ্রত্যাশীরা আগামী ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্বাচন কমিশনে আপিল করার সুযোগ পাবেন। ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বরের মধ্যে আপিল নিষ্পত্তি করা হবে। 

একাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল অনুযায়ী আগামী ৯ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময়। ১০ই ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ হবে। আর ভোট ৩০ ডিসেম্বর।