মন্ত্রী-এমপিরা চায় না প্রজারা রাজা হোক: হিরো আলম|110923|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:৩৫
মন্ত্রী-এমপিরা চায় না প্রজারা রাজা হোক: হিরো আলম
নিজস্ব প্রতিবেদক

মন্ত্রী-এমপিরা চায় না প্রজারা রাজা হোক: হিরো আলম

মনোনয়নপত্র বাতিলের বিরুদ্ধে আপিল করতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) এসে আলোচিত মডেল-তারকা আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম দাবি করেছেন, ষড়যন্ত্র করেই তার মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত ইসিতে হিরো আলম সাংবাদিকদের বলেন, ‘জিরো থেকে হিরো হয়েছি। ষড়যন্ত্র করে আমাকে থামানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। মন্ত্রী-এমপিরা চায় না প্রজারা রাজা হোক। ভোট যুদ্ধে আমি শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাবো।তার মানে আপনারটা কী ষড়যন্ত্র করে বাতিল করা হয়েছে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে হিরো আলম বলেন, ‘অবশ্যই ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।

কে ষড়যন্ত্র করেছে? কার ইঙ্গিত ছিল? এমন প্রশ্নের উত্তরে হিরো আলম বলেন, ‘ওখানে যারা আমার কেন্ডিডেট ছিল। ওই এলাকায় আপনারা খোঁজ-খবর নিয়ে দেখেন, হিরো আলম ছাড়া কেউ কোনো কিছু বলে না। হিরো আলম আওয়াজ ওঠে গেছে। আমার যারা প্রতিদ্বন্দ্বি, সব কয়টায় মিইলা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

জাতীয় পার্টির সমর্থন না পেয়ে বগুড়া- (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন হিরো আলম। মনোনয়নপত্রে সাধারণ ভোটাদের স্বাক্ষরে গড়মিল থাকার কথা জানিয়ে গতকাল রোববার তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন বগুড়া জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়েজ আহমেদ।

তবে হিরো আলমের দাবি, তার মনোনয়নপত্রে কোনও ভুল ছিল না।আমি এক শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর  দিয়েছিলাম। ওখান থেকে তারা শতকরা ১০ জন সিলেক্ট করছিল। এর মধ্যে ওরা সাতজন বলে রিয়েল (প্রকৃত) পাইছে, বাকি তিনজন খুঁজে পাইনি। তারা যখন রাতে কাগজ দেয়, ওখানে দেখায় সবই ভুল। আবার তারা যখন বলল সাত জনের কথা, যখন কাগজ দিল তখন বলল তিনজনের কথা।সাংবাদিকদের বলেন হিরো আলাম।

তিনি বলেন, ‘আমি বলব, আমার ক্ষমতার জোর নাই, আমার অর্থ-সম্পদ না নাই, জোর গলায় কথা বলতে পারলাম না। আমারটা গ্রহণ করল না। তা ছাড়া একবার বলল সাতটা, যখন কাগজ দিল পাঁচটা। তারা অবশ্যই আমার সঙ্গে দুর্নীতি করছে।

শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাওয়ার প্রত্যয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পাই আর না পাই, বীরের মতো মাথা তুলে যাবো এখন থেকে।