মুশফিককে বিশেষ ধন্যবাদ মিরাজের|111450|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:২০
মুশফিককে বিশেষ ধন্যবাদ মিরাজের
অনলাইন ডেস্ক

মুশফিককে বিশেষ ধন্যবাদ মিরাজের

৪ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের জয়ের নায়ক মিরাজ। ছবি: নাজমুল হক বাপ্পি

ওয়ানডে ভেন্যু হিসেবে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অভিষেকের দিনটি জয়ে রাঙিয়েছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৮ উইকেটে হারিয়ে নিশ্চিত করেছে সিরিজও। ৪ উইকেটে নিয়ে ক্যারিবীয়দের স্বল্প রানে আটকে রেখে ম্যাচ সেরার স্বীকৃতি মিলেছে অফ স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজের। ম্যাচ সেরার ট্রফি হাতে নিয়ে যিনি একটি কারণে বিশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছেন উইকেটরক্ষক মুশফিকুর রহিমকে।

শুক্রবার মিরাজের স্পিন ঘূর্ণিতে দিশেহারা হয়ে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ১৯৮ রানের বেশি করতে পারেনি ক্যারিবীয়রা। জবাবে তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকারের দাপুটে ব্যাটিংয়ে ৮ উইকেট আর ৬৯ বল হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

এদিন ৯৯ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলে উইন্ডিজ। ৪ উইকেটই ছিল মিরাজের। ব্যক্তিগত ৯ রানে ওপেনার হেমরাজ, ১০ রানে ডোয়াইন ব্রাভো, শূন্য রানে শিমরন হেটমায়ার ও ১ রানেই অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েলকে ফিরিয়ে দেন মিরাজ।

হেটমায়ারের উইকেটের জন্য মিরাজ ধন্যবাদ জানাচ্ছেন মুশফিককে। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে হাসিমুখে এই স্পিনার বলেন, ‘‘আমি আমার টিম মেটদের ধন্যবাদ দিতে চাই। যখন হেটমায়ার ব্যাট করতে আসে তখন মুশি (মুশফিক) মাশরাফি ভাইকে বলেছিল হেটমায়ারের জন্য মিরাজ সবচেয়ে ভালো অপশন। তাই মুশিকে ধন্যবাদ।’’

হেটমায়ারকে ব্যাটিংয়ে আসতে দেখে মুশফিকের পরামর্শে পরিকল্পনা বদলে মিরাজের হাতে বল তুলে দিয়েছিলেন মাশরাফি। ২৪তম ওভারটির পঞ্চম বলেই মিরাজ এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন বাঁহাতি হেটমায়ারকে।

বাংলাদেশ সফরে হেটমায়ারের জন্য ঠিক যমদূত হয়ে দেখা দিয়েছেন মিরাজ। কেন সেটি এই তথ্যই বলে দেয়- দুই টেস্টে মোট চার ইনিংস ও ওয়ানডের তিন ইনিংস মিলে সাত ইনিংসের ছয় বারই মিরাজের শিকার ছিলেন হেটমায়ার।

মিরপুরে দ্বিতীয় টেস্ট জয়ের পর মিরাজ জানিয়েছিলেন হেটমায়ারকে বারবার পরাস্ত করতে পারার রহস্য। অনূর্ধ্ব-১৯ দল থেকেই হেটমায়ারকে খুব ভালোভাবে চিনেন মিরাজ। জানেন এই ক্যারিবিয়ানের শক্তি ও দুর্বলতা। মুশফিকও নিশ্চয়ই মাশরাফিকে সেটিই মনে করিয়ে দিয়েছেন এদিন।

প্রথম ওয়ানডেতে হেটমায়ার মিরাজের বলে ফেরেন মাত্র ৬ রান করে। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে অবশ্য মিরাজকে এড়াতে পেরেছিলেন গায়ানার এই ক্রিকেটার। তবে মাত্র ১৪ রান করেই ফেরেন রুবেল হোসেনের শিকার হয়ে।

টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ মিলে বাংলাদেশ সফরে হেটমায়ারের ইনিংসগুলো এ রকম- ০, ১৪, ৬, ৩৯, ৯৩, ৬৩, ২৭। মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসের কথা বাদ দিলে বাংলাদেশ সফর ভুলে যেতে চাইবেন হেটমায়ার।

মিরাজ এদিনের জয়ে অবশ্য টসকেও গুরুত্ব দিলেন, ‘‘প্রথমে বোলিং করতে পেরে সত্যিই আমি আনন্দিত। কারণ উইকেট টার্নিং ছিল।’’ জুনিয়ারদের পারফর্ম করা নিয়ে বলেন, ‘‘যদি জুনিয়ররা এগিয়ে আসতে পারি তাহলে দলের জয় সহজ হয়ে যায়।’’