গোবর ও গো-মূত্রের ব্যাংক খুলছে ভারত|111548|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:৩০
গোবর ও গো-মূত্রের ব্যাংক খুলছে ভারত
অনলাইন ডেস্ক

গোবর ও গো-মূত্রের ব্যাংক খুলছে ভারত

আক্ষরিক অর্থেই গরুর কল্যাণার্থে ও গো-হত্যা রোধে তহবিল গঠন করছে গুজরাট সরকার। গুজরাটের লাখ লাখ গরু কসাইখানায় বিক্রি রোধে ‘জীব দয়া’ সংগঠনের অনুসারীদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে সরকার গরুর গোবর ও মূত্র সংগ্রহশালা তথা ব্যাংক স্থাপন করেছে। 

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, গরু সংরক্ষণের দায়িত্ব পালনকারী মন্ত্রী ভুপেন্দ্রসিন চৌদাসমা বলেন, “জৈব সার এবং প্রাকৃতিক কীটনাশকের ক্রমবর্ধমান চাহিদার ফলে কৃষকদের মূলধন বাড়ানোর জন্য সরকার খামারগুলোতে গো-মূত্র ও গোবর ব্যাংক স্থাপন করতে চায়।”

এখান থেকে প্রাপ্ত অর্থ দিয়ে অসহায় গৃহহীন বৃদ্ধ গরুদের জন্য আশ্রয় প্রকল্প খোলা হবে। লক্ষ লক্ষ পরিত্যক্ত পশুর সেবা-যত্ন নেওয়ার লক্ষে একটি তহবিল গঠন করা হবে বলে জানান ভুপেন্দ্রসিন।

তিনি বলেন, গো-মূত্র ও গোবর সংগ্রহ করে তা জৈব সার হিসেবে বিক্রি করবে। গরুর গোবর ও মূত্র জৈব সার, প্রাকৃতিক কীটনাশক ও আয়ুর্বেদ উপদানের কাঁচামাল হিসেবে ব্যাপকহারে ব্যাবহার করা হয়। গো-মূত্র সংগ্রহ ও বিক্রির মধ্য দিয়ে কৃষক সমবায় সুবিধা পাবে। 

সরকার দুধ বন্ধ করে দেওয়া গরুর মালিককে গরু রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ২৫ রুপি করে আর্থিক সহায়তাও প্রদান করছে বলে জানান।  

গুজরাটের খামারিরা বলছে, এই এলাকায় গরুর খাবারের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে দুধ বন্ধ করে দেওয়া গরুদের লালন-পালন ব্যয় সাপেক্ষ। ফলে বৃদ্ধ গরুদের পরিত্যক্ত হিসেবে ছেড়ে দেওয়া হয়। 

গত এক মাসে নয় থেকে ১১ হাজার পরিত্যক্ত গরুর দেখা মিলছে বলে জানিয়েছেন এক খামারি। তিনি বলেন, সরকার যদি তাদের সাহায্য করে এবং নামেমাত্র মূল্যেও গো-মূত্র ও গোবর কিনে নেয় তাহলে বয়স্ক গরুগুলো পালনে সুবিধা হয়। 
সরকার ইতিমধ্যে গরু প্রতি ২৫ রুপি করে ১১ জেলায় ৪১২ টি খামারে প্রায় আড়াইলাখ রুপি অর্থ প্রদান করেছে।