তরতাজা পিজা ভাই|111628|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:৪১
তরতাজা পিজা ভাই
ওয়াহিদ সুজন

তরতাজা পিজা ভাই

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘পিজা ভাই’-এর পোস্টার। ছবি: বায়োস্কোপ

ডার্ক হিউমারের প্রতি নুহাশ হুমায়ূনের আলাদা টান রয়েছে। তার প্রথম টিভি ফিকশন ‘হোটেল অ্যালবাট্রস’-এ বিষয়টি টের পাওয়া যায়। অনলাইন প্লাটফর্ম বায়োস্কোপের অরিজিনাল কনটেন্ট হিসেবে সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া ‘পিজা ভাই’-এর বিষয় আলাদা হলেও উপস্থাপনার ঢং সেই ডার্ক হিউমার-ই।

‘পিজা ভাই’-এর নায়ক পার্থ পার্টটাইম পিজা ডেলিভারি বয়। শুধু রাতেই একঘেয়ে এ কাজ করে সে। ঝামেলাও কম নয়, সে অনুসারে বেতন ততটা আকর্ষণীয় নয়। ঘটনাচক্রে পিজা ডেলিভারি দিতে গিয়ে পার্থর সঙ্গে পরিচয় হয় সাবেক গার্লফ্রেন্ডের বর্তমান প্রেমিকের সঙ্গে- যে তাকে মাদকের ব্যবসায় আসার হাতছানি দেয়।

আর্থিক সংকট, আর খানিক অ্যাডভেঞ্চারের লোভে পার্থ জড়িয়ে পড়ে ওই কারবারে। কিন্তু আন্ডারওয়ার্ল্ডের রাস্তাঘাট বড়ই পিচ্ছিল। পার্থর জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়ায় বেবি ভাইয়ের দল। এর পরের কাহিনি রহস্য ও রহস্যের জট খোলার।

নুহাশ ৩৫ মিনিটের ফিকশনে বিশদ কাহিনী বর্ণনা করেছেন। কখনো বা মনোলগ, আর কখনো ফিকশনের প্রচলিত ফর্মেটে। যদিও বড় দৈর্ঘ্যে এ গল্প দেখতে ইচ্ছা করে- কিন্তু জানান দেয়, নুহাশ ছোট পরিসরে সেই গল্প বলায় কতটা পারঙ্গম। কোনো ‍দৃশ্য বা সংলাপ থেকে চোখ-কান ফেরানো যায় না। তাছাড়া নুহাশ যে কোনো গল্পে তরতাজা ট্রিটমেন্ট নিয়ে হাজির হন, যা বরাবরই উপভোগ্য। এছাড়া তার আগের নির্মাণগুলো বিশেষ করে সর্বশেষ ফিকশন ‘৭০০ টাকা’র চেয়ে অনেক পরিপক্ক কাজ ‘পিজা ভাই’।

গল্পের একাধিক বাঁক আছে। বিশেষ করে শেষ টুইস্ট খুব বেশি না হলেও চমকে দেওয়ার মতো। সেই সাসপেন্সময় মুহূর্তে গল্পের ইতি টানেন নুহাশ। যেন ঠিকঠাক দাড়ি টানা। পাশাপাশি নির্মাণশৈলি গল্পকে প্রাণবন্ত করেছে।

ছোট ছোট কমিক দৃশ্য, সংলাপ একদমই বোর হতে দেয় না। অবশ্য পুলিশ পিজার দোকান ঘিরে ফেলার পরও পার্থ কীভাবে পালিয়ে যায় স্পষ্ট নয়! আর পুলিশ কেন ভেতরে না ঢুকে বাইরে অপেক্ষা করে বোঝা যায়নি।

ছোট দৈর্ঘ্যের এ চলচ্চিত্রে ‘পিজা ভাই’ চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাহাত রহমান। সাধারণত এ ধরনের চরিত্রে আরেকটু নায়কোচিত কাউকে দর্শক আশা করেন। এখানেই নুহাশ ভালো টোপ ফেলেছেন। রাহাত দারুণ অভিনয় করেছেন। তার চেয়ে বড় বিষয় পিজা ডেলিভারি বয় হিসেবে রাহাতকে বিশ্বাসযোগ্য ও বাস্তবানূগ মনে হয়েছে।

অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিশৌরী রশীদ খান, জুনেয়না ফ্রান্সিস কবীর ও বায়েজীদ হক জোয়ার্দার। সব কাস্টই যথাযথ, অভিনয়ও করেছেন ক্যাজুয়াল মুডে। ভালো লাগে। বেশ ভালো লাগে।