চাইলে টেম্পারিং থামাতে পারতেন স্মিথ!|112298|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৮:৪৫
চাইলে টেম্পারিং থামাতে পারতেন স্মিথ!
অনলাইন ডেস্ক

চাইলে টেম্পারিং থামাতে পারতেন স্মিথ!

সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলছেন স্টিভ স্মিথ। ছবি: টুইটার

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ বলেছেন কেপ টাউনে বল টেম্পারিং কাণ্ডের পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না তিনি। তবে অধিনায়ক হিসেবে সেটি থামাতে পারেননি বলে দায়ভার নিজের কাঁধে নিয়েছেন। অজি ক্রিকেটার মনে করেন, তার নেতৃত্ব সেদিন ব্যর্থ হয়েছিল।

গেল মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের কেপ টাউন টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের ঘটনা ঘটান অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটাররা। ক্যামেরন ব্যানক্রফট সিরিঞ্জ জাতীয় বস্তু দিয়ে বলের আকৃতি পরিবর্তনের চেষ্টা করছিলেন। যা ধরা পরে টিভি ক্যামেরায়। সিডনিতে শুক্রবার দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্মিথ নিজের ব্যর্থতা স্বীকার করে বলেছেন, টেম্পারিং বন্ধ করার সুযোগ ছিল তার সামনে।

কেপটাউনে ব্যানক্রফটের হাত দিয়ে বল টেম্পারিং হলেও এই ঘটনার মূল পরামর্শদাতা ছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার। যাতে সায় ছিল অধিনায়ক স্টিভ স্মিথের। এই ঘটনা এলোমেলো করে দেয় অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটকে।

পরে সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন স্টিভ স্মিথ। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ঘটনায় জড়িত থাকায় স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফটে বহিষ্কার করে। প্রথম দুজনকে এক বছর ও ব্যানক্রফটকে নয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়।

কেপটাউন টেস্ট চলাকালেই অধিনায়কত্ব হারান স্মিথ এবং ওই ম্যাচ শেষে সিরিজের মাঝ পথেই দেশে ফেরত পাঠানো হয় তাদের।

দেশে ফিরে বিমানবন্দরে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছিলেন স্মিথ। সেদিন কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায় স্মিথকে।

সেদিনের পর অবশ্য সেভাবে সংবাদমাধ্যমে আর মুখোমুখি হন স্মিথ। অবশেষে শুক্রবার সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে সংবাদমাধ্যমে খোলামেলা কথা বললেন।

এ সময় সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত স্মিথ বলেন, ‘‘এটি বন্ধের সুযোগ ছিল আমার। কিন্তু সেটি করতে পারিনি। আমার নেতৃত্ব সেখানে ব্যর্থ হয়েছিল।’’

‘‘আমি রুমের মধ্য দিয়ে হাঠছিলাম, তখন কিছু একটা পরিকল্পনা হচ্ছিল। আমি সেখানেই সেটা থামাতে পারতাম। এটা ঘটার সম্ভাবনা ছিল। আমি বাইরে গিয়েছিলাম এবং মাঠের ভেতরে ঘটেছে। আমার সুযোগ ছিল এটি বন্ধ করার কিন্তু আমি এ নিয়ে কিছু জানতে চাইনি। এটা আমার নেতৃত্বের ব্যর্থতা। এবং আমি সব দায়িত্ব নিয়েছি।’’

নিষিদ্ধ থাকার সময়টা যেভাবে কেটেছে তা নিয়েও কথা বলেছেন স্মিথ। তবে সব ভুলে আবারো অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরতে চান স্মিথ। জানিয়েছেন সে আশা , ‘‘আমি শুধু দিন দিন সামনে এগিয়ে যেতে চাই। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে আবার খেলার জন্য নিজেকে তৈরি করতে চাই। এবং এটা বিশ্বকাপ ও অ্যাশেজকে লক্ষ্য করে।’’