সরিষাবাড়ীতে বিএনপি অফিস ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ|112887|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৮:২৬
সরিষাবাড়ীতে বিএনপি অফিস ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ
জামালপুর প্রতিনিধি

সরিষাবাড়ীতে বিএনপি অফিস ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ

সরিষাবাড়ীতে উপজেলা বিএনপি অফিসে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা। ছবি: দেশ রূপান্তর

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে উপজেলা বিএনপি অফিসে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার দুপুরে উপজেলার আরামনগর বাজারের গোহাটীতে নির্বাচনী পথসভা করছিল আওয়ামী লীগ প্রার্থী ডা. মুরাদ হাসান। পথসভা থেকে হঠাৎ নৌকা প্রতীকের সমর্থরা ওই বাজারে অবস্থিত উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে হামলা চালায়। হামলাকারীরা আসবাব পত্র, বাজারের বিএনপি সমর্থকদের কয়েকটি দোকান, অন্তত ৭ টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর এবং ২ টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে। এ সময় দুই দলের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বিজিবি ও পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

উপজেলা বিএনপির সভাপতি আজিম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, “আওয়ামী লীগের পথসভা চলাকালে হঠাৎ তারা জানতে পারে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ফরিদুল কবীর তালুকদার শামীমের প্রার্থিতা স্থগিত করে দেওয়া হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদনে “নো অর্ডার” দিয়েছেন  চেম্বার জজ আদালত। এ খবর পেয়ে পথসভা থেকে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে বিএনপির কার্যালয় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোতে ও বেশ কিছু মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে তারা”।  

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা বলেন, “আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. মুরাদ হাসানের পথসভায় হামলা চালায় বিএনপির নেতাকর্মীরা। এর প্রতিবাদে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা আরামনগর বাজারে মিছিল করতে থাকে। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা নিজেরাই তাদের দলীয় কার্যালয় ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়”।

সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাজেদুর রহমান জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। লিখিত অভিযোগের পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।