সহজ হলো বিদ্যুৎ আমদানি|113142|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
ভারতের নীতিমালা সংশোধন
সহজ হলো বিদ্যুৎ আমদানি
নিজস্ব প্রতিবেদক

সহজ হলো বিদ্যুৎ আমদানি

বিদ্যুৎ আমদানি-রপ্তানি (ক্রস বর্ডার) নির্দেশিকা-২০১৮ গত ১৮ ডিসেম্বর প্রকাশ করেছে ভারত। নতুন এ নির্দেশিকা অনুমোদন হওয়ায় বাংলাদেশের জন্য সহজ হলো প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে বিদ্যুৎ আমদানি। এখন বাংলাদেশ ভারতের ভূখ- ব্যবহার করে প্রতিবেশী দেশসমূহ হতে বিদ্যুৎ আমদানি করতে পারবে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গতকাল এ কথা জানানো হয়েছে। ভারতের ‘ক্রস বর্ডার ট্রেড অব ইলেক্ট্রিসিটি’র (৫ ডিসেম্বর ২০১৬) নির্দেশিকার ৩.১ ধারায় বলা ছিল, ভারত ও প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে যে কোনো ক্রস বর্ডার  লেনদেন ভারতীয় সত্তা/সংস্থা এবং সংশ্লিষ্ট দেশের কোনো সত্তা/সংস্থার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির মাধ্যমে অনুমোদিত হবে, যা দেশগুলোর মধ্যে সামগ্রিক কাঠামোর অধীনে চুক্তি দ্বারা স্বাক্ষরিত। কিন্তু সম্প্রতি সংশোধন করে প্রকাশিত নির্দেশিকার বলা হয়েছে, দুটি আলাদা দেশ নিজেদের মধ্যেও বিদ্যুৎ কেনাবেচা করতে পারবে, যেখানে ভারত ত্রিপক্ষীয় চুক্তি দ্বারা তাতে অংশগ্রহণ বা অনুমোদন করবে । আঞ্চলিক সহযোগিতার কাঠামোর মধ্যে বিদ্যুৎ খাতে পারস্পরিক সহযোগিতার জন্য বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে গঠিত জয়েন্ট স্ট্রিয়ারিং কমিটির সভায় নেপাল বা ভুটান অথবা প্রতিবেশী দেশ থেকে ভারত হয়ে বিদ্যুৎ আমদানির বিষয়ে বারবার আলোচনা করা হয়। আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রণীত ভারতের নতুন এ নির্দেশিকা পার্শ্ববর্তী দেশ থেকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ আমদানির পথ প্রশস্ত করবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়েছে, এরমধ্যে নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ আমদানি বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে। গত ৩-৪ ডিসেম্বর প্রথম জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ ও জয়েন্ট স্ট্রিয়ারিং কমিটির সভা কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে, ভারত হয়ে নেপাল থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।