বলিউডের সেরা ১০|113146|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
বলিউডের সেরা ১০

বলিউডের সেরা ১০

বিশ্ব চলচ্চিত্রের ভাষা এখন বদলে গেছে। এখন আর মসলা ছবির চল নেই। একসময় তারকা দেখে ছবি চলত। এখন ছবির নায়ক হচ্ছে গল্প। ভালো গল্পের বৈচিত্র্যময় উপস্থাপনা একটি তারকাবিহীন ছবিকেও সফল করে দিচ্ছে। হলিউডে এই প্রচলন আগে শুরু হলেও বলিউডে এ বছরই বিশেষভাবে বিষয়টি চোখে পড়েছে। তাই তো সালমান, শাহরুখ, আমিরের চেয়ে দর্শক ভালো গল্পের ছবিতে আয়ুষ্মান খুরানা, রাজকুমার রাও, ভিকি কুশল কিংবা আলিয়া ভাট, তাপনি পান্নু, রাধিকা আপ্তে, ভূমি পেডনেকারের ছবিতে বেশি আগ্রহ দেখিয়েছে। বক্স অফিস, আলোচনা, তারকাদের অভিনয়Ñ এসব মিলিয়ে এ বছরের সেরা ১০ বলিউড ছবি নিয়ে এ আয়োজন সায়িয়েছেন মাসিদ রণ 

১. রাজি

অভিনয়ে নিজের প্রজন্মের সবাইকে ছাড়িয়েছেন আলিয়া ভাট। ‘হাইওয়ে’, ‘উড়তা পাঞ্জাব’, ‘কাপুর অ্যান্ড সন্স’, সবশেষ এ বছরের ‘রাজি’। পরিশ্রম ও দক্ষতা দিয়ে নিজেকে চিনিয়েছেন মহেশ ভাটকন্যা। ‘রাজি’ ছবিটি নির্মাণ করেছেন মেঘনা গুলজার। গত বছর ‘তলোয়ার’ ছবি নির্মাণ করে নতুন পরিচালকের ফিল্মফেয়ার জিতে নেন প্রখ্যাত কবি-গীতিকার গুলজারের মেয়ে। তার ‘রাজি’ ছবির প্লট ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার সংঘাত। একটি ২০ বছর বয়সী মেয়ে দেশের জন্য নিজের জীবন বাজি রেখে বৈবাহিক সূত্রে পাকিস্তান যায়। সেখানে অপারেশন চালায়, এমনকি শ^শুরবাড়ির সবাই একে একে তার কারণে নিহত হন। সেই সেহমত চরিত্রে অভিনয় করে আলিয়া একেবারে বাজিমাত করেছেন। প্রশংসা জুটেছে খোদ বলিউডের নামকরা অভিনেতা-পরিচালকদের কাছ থেকেও। আর বক্স অফিস? মাত্র ২৯ কোটি রুপি বাজেটের ছবিটি ১২০ কোটি আয় করেছে। তাও আবার বিশিষ্ট অভিনেতাদের ছবির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে। শুধু তা-ই নয়, এ ছবিতে আলিয়া ছাড়া আর কোনো বড় তারকাই ছিলেন না। একাই পুরো ছবি টেনে নিয়েছেন এই মেধাবী তারকা। এ বছরের ফিল্মফেয়ার পুরস্কারের দৌড়ে অবশ্যই আলিয়া এগিয়ে থাকবেন বলে মনে করছেন চিত্রসমালোচকরা।

২. সাঞ্জু

গুণী নির্মাতা রাজকুমার হিরানির ‘সাঞ্জু’ মুক্তি পায় গত ২৯ জুন। পাইরেসির ধাক্কা সামলে মুক্তির প্রথম দিনেই ৩৫ কোটি রুপি আয় করেছে বলিউড তারকা সঞ্জয় দত্তের এই বায়োপিক। নিজেকে সঞ্জয় দত্তের আদলে তৈরি করতে কি না করেছেন রণবীর কাপুর। দিনের পর দিন নিজেকে ভেঙেছেন, গড়েছেন। টানা তিন মাস প্রতিদিন পাঁচ-ছয় ঘণ্টা মেকআপে বসে নিজেকে সঞ্জয়ের লুক দিতে একটুও দ্বিধা করেননি। টানা ২৫ দিন সঞ্জয় দত্তের সঙ্গে বসা, ২০০ ঘণ্টার বেশি রেকর্ডিং, সেখান থেকে ৭৫০ পাতার ‘ট্রান্সক্রিপ্ট’র ফলাফল ‘সাঞ্জু’। তার ফল পেয়েছেন রণবীর কাপুর। সমালোচকদের প্রশংসার পাশাপাশি বক্স অফিসও রাজ করেছে ছবিটি। তিন দিনেই ১০০ কোটির ক্লাবে প্রবেশ করে ছবিটি। আর মুক্তির প্রথম সপ্তাহে ২০০ কোটির ক্লাবে জায়গা করে নেয়। এ বছরের অন্যতম ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র এটি। রণবীর কাপুর ছাড়াও অভিনয় করছেন মনীষা কৈরালা, সোনম কাপুর, দিয়া মির্জা, পরেশ রাওয়াল, ভিকি কুশাল, জিম সার্ব প্রমুখ। এ ছাড়া ক্যামিও চরিত্রে দেখা গেছে আনুশকা শর্মাকে। ছবিটির প্রযোজনায় রয়েছেন বিধু বিনোদ চোপড়া।

৩. পদ্মাবত

সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত দীপিকা পাড়ুকোন, রণবীর সিং ও শাহিদ কাপুর অভিনীত পদ্মাবত ছবিটি বলিউডের সর্বোচ্চ ব্যয়ে নির্মিত। এ বছরের ২৫ জানুয়ারি মুক্তি পায় ছবিটি। ‘পদ্মাবতী’ ভারতের ৭০০ বছর আগেকার চিতোরের রানি পদ্মিনীর জীবন নিয়ে তৈরি। ছবির মূল চরিত্র পদ্মাবতী রূপে দীপিকা পাড়ুকোন অভিনয় করেছেন। তার স্বামী রতন সিংয়ের চরিত্রে শাহিদ কাপুরকে দেখা গেছে। আর পদ্মাবতীর শত্রুরূপী আলাউদ্দিন খিলজির চরিত্রে আছেন রণবীর সিং। তিন তারকার অভিনয়ই সবাইকে তাক লাগিয়ে দেয়। এরই মধ্যে দীপিকা আর রণবীর সিং এ বছরের প্রথম অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে সেরা অভিনেতা-অভিনেত্রীর পুরস্কার জেতেন। তবে ছবিটি নিয়ে কয়েকটি সংগঠন আন্দোলন করে, সেই সঙ্গে শ্যুটিংয়ে হামলাও করা হয় বেশ কয়েকবার। ফলে ছবিটির মুক্তির তারিখ কয়েক মাস পিছিয়ে যায়। তবে মুক্তির পর ছবিটি সমালোচকদের মন জয় করার পাশাপাশি বক্স অফিসেও সুপারহিট ব্যবসা করে। বাণিজ্য বিশ্লেষকদের মতে, ‘পদ্মাবতী’ ৩০০ কোটি রুপির ওপরে আয় করেছে।

৪. ভীরে দ্য ওয়েডিং

বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অনিল কাপুরকন্যা রিয়া কাপুর পরিচালিত প্রথম ছবি ‘ভীরে দ্য ওয়েডিং’। প্রথম ছবিতেই এই নারী নির্মাতা নারী শক্তির জয়গান গেয়েছেন। ছবির প্রাণ চার নারীর গল্প। এই চারটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন কারিনা কাপুর খান, সোনম কাপুর, স্বোয়ারা ভাস্কর ও শিখা। চার নারীর চার ধরনের গল্পÑ কারো বিয়েবিচ্ছেদ হয়েছে, কারো স্বামীর সঙ্গে বনিবনা হয় না, কারো বিয়ে হবে হবে করে হচ্ছে না আবার কেউ বিয়েতেই বিশ^াস করে না। একেবারে ২০১৮ সালের আধুনিক ইনডিপেনডেন্ট নারীর গল্প এটি। মৌলিক গল্পের ছবিটিতে দারুণ লোকেশন, ফ্যাশনেবল পোশাক, বোল্ড ডায়ালগ আর সমাজের জন্য দারুণ কিছু মেসেজ রয়েছে। এ জন্য এই ছবিকে বলিউড অন্যদৃষ্টিতে দেখছে। এই প্রথম একেবারেই নারীদের তৈরি কোনো ছবি দর্শকের পাশাপাশি বক্স অফিসও মাত করেছে। ছবিটি ১০০ কোটির সম্মানজনক ক্লাবে জায়গা করে নিয়েছে। ব্যবসায়িক দিক থেকে হয়তো বিশিষ্ট তারকাদের অনেক ছবি এর চেয়ে বেশি আয় করেছে। তবে এই ছবি যে নতুন ধারার জন্ম দিয়েছে, বলিউডে তার অসামান্য।

৫. বাকি ৬

ছবির নায়ক হচ্ছে গল্প এই ধারণাকে এ বছর বলিউডে প্রতিষ্ঠিত করেছে যে ছবিগুলো, এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে আয়ুষ্মান খুরানা-টাবু-রাধিকা আপ্তের ‘আন্ধাধুন’, আয়ুষ্মান খুরানার ‘বাধাই হো’, বারুণ ধাওয়ানের ‘অক্টোবর’, রাজকুমার রাও-শ্রদ্ধা কাপুরের ‘স্ত্রী’, অভিষেক বচ্চন-ভিকি কুশল-তাপসী পান্নুর ‘মনমর্জিয়া’ ও রানী মুখার্জিও ‘হিচকি’। ‘বাধাই হো’ ছবিটি নির্মিত হয় সমাজে যৌনতা নিয়ে যেসব স্পর্শকাতরতা আছে, তা নিয়ে। ‘আন্ধাধুন’ ছবির গল্প একজন অন্ধ তরুণের থ্রিলারধর্মী অভিজ্ঞতা নিয়ে। বারুণ ধাওয়ানের ‘অক্টোবর’ ছবিটি নির্মাণ করেছেন সুজিত সরকার। এর আগে তার ‘পিকু’ ছবিটিও দারুণ সফলতা পায়। ‘অক্টোবর’-এর গল্প প্রেমের, তবে সহকর্মীর প্রতি প্রেম, মানবতার প্রতি প্রেম। নিজেকে একেবারেই নতুনরূপে তুলে ধরেছেন বারুণ। স্ত্রী ছবিটি ভারতের একটি সমাজের বহু বছরের পুরোনো কুসংস্কার নিয়ে নির্মিত। যেখানে একটি অতৃপ্ত নারীর আত্মা পুরুষের দ্বারা যে অন্যায়ের স্বীকার হয়েছিল একদিন, তার বদলা নিতে আসে বছরের নির্দিষ্ট একটি সময়ে। সে ‘স্ত্রী’ পুরুষদের ধরে নিয়ে স্ত্রীতে রূপান্তরিত করে। আর অনুরাগ ক্যাশপের ‘মনমর্জিয়া’ সমাজের একটি প্রচলিত রীতির বিরুদ্ধে কথা বলে। তা হলো কোনো পূর্ব পরিচয় ছাড়াই হুট করে একটি পুরুষ ও একটি নারীকে সারা জীবনের জন্য একত্র করে দেওয়া হয় বিয়ের মাধ্যমে। সবশেষ ছবি ‘হিচকি’তে রানী মুখার্জি তুলে ধরেন প্রতিটি মানুষের কোনো না কোনো দুর্বল দিক থাকে ও তা থেকে উত্তরণের গল্প।