গয়েশ্বরের ওপর হামলা বিপু লজ্জিত, ওসি দুঃখিত|113402|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
গয়েশ্বরের ওপর হামলা বিপু লজ্জিত, ওসি দুঃখিত
নিজস্ব প্রতিবেদক

গয়েশ্বরের ওপর হামলা বিপু লজ্জিত, ওসি দুঃখিত

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নয়াপল্টন কার্যালয়ে দেখা করতে যান নসরুল হামিদ বিপু:দেশ রূপান্তর

ঢাকা-৩ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের ওপর হামলার ঘটনাকে অনাকাক্সিক্ষত বর্ণনা করে লজ্জিত বলে জানিয়েছেন প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু। গতকাল বুধবার নয়াপল্টনে গয়েশ্বরের কার্যালয়ে তাকে দেখতে গিয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ প্রতিক্রিয়া জানান।

পরে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি শাহ মো. জামানও গয়েশ্বরের সঙ্গে দেখা করে দুঃখপ্রকাশ করেন। তিনি বলেন, স্যার ভুল হয়ে গেছে, মাফ করে দিয়েন। পাশাপাশি গয়েশ্বরের কাছে আজ বৃহস্পতিবারের নির্বাচনী গণসংযোগের শিডিউল জানতে চান এবং নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত করেন।

এর আগে সকাল ১১টায় বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নয়াপল্টনে গয়েশ্বরের রাজনৈতিক কার্যালয়ে যান। তিনি সরাসরি চেম্বারের পাশে তার শোবার ঘরে ঢুকেন। এ সময় মাথায় ব্যান্ডেজ নিয়ে গয়েশ্বর বসে ছিলেন। সালাম দিয়ে প্রতিমন্ত্রী বিপু দাদা সম্বোধন করে তার পাশেই বসেন। গয়েশ্বরের কাছে ঘটনার বিবরণ শুনেন। পরে গয়েশ্বর প্রতিমন্ত্রীকে নিয়ে নিজের কক্ষ থেকে বেরিয়ে চেম্বারে আসেন, সেখানে বিপু সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দাদা (গয়েশ্বর রায়) দীর্ঘদিন এখানে রাজনীতি করছেন। উনি আমার থেকে অনেক সিনিয়র এবং উনি আমাদের গুরুজন। গতকাল যে অনাকাক্সিক্ষত ঘটনাটা ঘটে গেছে সে জন্য আমরা সকলে লজ্জিত। ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদের অবশ্যই শাস্তি পাওয়া উচিত। আইন প্রয়োগকারী সংস্থা রাতেই তিনজনকে ধরেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা মনে করি যে, এই ধরনের খারাপ পরিস্থিতি মোটেও প্রশ্রয় দিইনি, কোনো দিন আগেও দিইনি, এখনো ঘাটতি হবে না। সে যে দলের হোক না কেন আমার দলের হোক অথবা অন্য কোনো দলের হোক। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে বলব তারা যেন সেভাবে ব্যবস্থা নেয়।’

পরে গয়েশ্বর সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি বিরতিহীনভাবে ৫৩ বছর রাজনীতি করি। জাতীয় পর্যায়ে নেতৃত্ব দিলেও স্থানীয় পর্যায়ে কমতি ছিল না। আমার একটা আত্মবিশ্বাস ছিল যে কেরানীগঞ্জের লোকজন কখনো কেউ আমাকে অসম্মান করবে না। কারণ দলমত নির্বিশেষে কেরানীগঞ্জের প্রতিটা মানুষের সঙ্গে আমার সুসম্পর্ক রয়েছে।’

কেরানীগঞ্জের উপজেলা চেয়ারম্যান ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা শাহীন চৌধুরী এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।