কুষ্টিয়ায় শেষ দিনের প্রচারে ইনু-হানিফ|113576|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
কুষ্টিয়ায় শেষ দিনের প্রচারে ইনু-হানিফ
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

কুষ্টিয়ায় শেষ দিনের প্রচারে ইনু-হানিফ

শেষ মুহূর্তের নির্বাচনী প্রচারে গতকাল বৃহস্পতিবার ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন কুষ্টিয়ার দুই প্রভাবশালী প্রার্থী কুষ্টিয়া-২ (মিরপুর-ভেড়ামারা) আসনে জাসদ সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

দুপুরে হাসানুল হক ইনু নির্বাচনী প্রচার চালান মিরপুরে। আর হানিফ তার নির্বাচনী এলাকার ঝাউদিয়া ইউনিয়নে কয়েকটি জনসভায় অংশ নেন। নির্বাচনী প্রচারের সময় তারা সামগ্রিক নির্বাচনী পরিবেশ ও ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেনকে হত্যার ষড়যন্ত্র প্রসঙ্গেও কথা বলেন।

ইনু বলেন, বিএনপি-জামাত ঐক্যফ্রন্টের আসল চিন্তার প্রকাশ হলোÑ অদল বদল করে রাজনীতির গাড়িটা চালানো, তাদের গ-ি খালেদা-তারেক-জামায়াত। ড. কামাল একটা খেলনা স্টিয়ারিং হাতে করে জানালার পাশে বসে আছেন, তিনি কিছুই করতে পারবেন না। বিএনপি-জামায়াতের চক্রান্তের ফাঁদে কার্যত ড. কামাল হোসেনরা আটকে গিয়েছেন। তারা সমগ্র নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে একটা কাল্পনিক অভিযোগের জাল দিয়ে ঢাকার চেষ্টা করছেন।

হানিফ বলেন, যেহেতু সিলেটের শওকত সাহেবের লন্ডনের সঙ্গে রয়েছে গভীর সম্পর্ক, সেই লন্ডন থেকে উনি জানতে পেরেছেন, এই নির্বাচনকে বানচাল করতে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করার জন্য তারেক রহমানের শেষ অস্ত্র হচ্ছে ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনকে হত্যা করা বা এই জাতীয় কোনো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিকে হত্যার ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশকে চরম অস্থিতিশীলতার মধ্যে নিয়ে যাওয়া। এই তথ্য ফাঁস হওয়ার কারণেই পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার নিরাপত্তা রক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি নিরাপত্তা নেবেন কি নেবেন না সেটা তার ব্যাপার।

সরকারের প্রশাসন তার দায়িত্ব পালনে বদ্ধপরিকর। তবে তারা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত নির্বাচন বানচাল করতে ড. কামালের মতো একটা বড় মাপের মানুষকেও হত্যার পরিকল্পনা করতে পিছপা হয়নি। গতকাল একটা জরিপের ফলে প্রায় আড়াইশ আসন আওয়ামী লীগ পাবে এমন রিপোর্ট পেয়ে তাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। কিন্তু দেশ উন্নয়নের ধারায় যেভাবে এগিয়েছে তাতে দেশবাসী আবারও নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।