গণভবনে কেন্দ্রীয় নেতারা তবুও সতর্ক থাকুন : প্রধানমন্ত্রী|113980|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
গণভবনে কেন্দ্রীয় নেতারা তবুও সতর্ক থাকুন : প্রধানমন্ত্রী
পাভেল হায়দার চৌধুরী

গণভবনে কেন্দ্রীয় নেতারা তবুও সতর্ক থাকুন : প্রধানমন্ত্রী

‘তোমরা তো জিতেই আছো, তবুও সতর্ক থাকুন।’ ভোট নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে সর্বশেষ এই মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে দুটি ভয়ের কথাও নেতাদের কাছে প্রকাশ করেন তিনি। এর একটি ভোটের দিন বিএনপি-জামায়াতের নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা, দ্বিতীয়টি গুজব।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ভোটের দিন বিএনপি-জামায়াত জোটের নেতাকর্মীরা ভোটে থাকবে না, ভোট থেকে সরে গেছে এসব গুজব ছড়াবে। ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ‘সিরিয়াসনেস’ নষ্ট করবে, তারপর সুযোগ বুঝে তারা কেন্দ্র দখল করবে। করবে নাশকতাও। তাই ভোটকেন্দ্র থেকে সরে যাওয়া চলবে না। আর সতর্ক থাকতে হবে গুজব থেকে। মোকাবিলা করতে হবে সম্ভাব্য নাশকতা।

গত শুক্রবার রাতে সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা সাক্ষাৎ করতে গেলে সারা দেশের নেতাকর্মীদের জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের মাধ্যমে এসব নির্দেশনা দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। পরে নির্দেশনা এরই মধ্যে সারা দেশের নেতাকর্মীদের পৌঁছে দেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনা বলেন, ‘সারা দেশে বার্তা পাঠিয়ে দাও ভোটের দিন বিএনপি-জামায়াতের ছড়ানো কোনো গুজবে কান দেওয়া যাবে না। বিএনপি-জামায়াতের সম্ভাব্য নাশকতা মোকাবিলায় সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে হবে।’ দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, বি এম মোজাম্মেলসহ কেন্দ্রীয় সাতজন নেতা ওই সময় উপস্থিত ছিলেন। নেতারা ভোটের সর্বশেষ পরিস্থিতি ও নিজেদের প্রস্তুতি দলীয় সভাপতিকে অবহিত করেন।

শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাতের কথা স্বীকার করে আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘দলীয় সভাপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ রুটিন কাজ। ভোটকে ঘিরে তিনি কিছু পরামর্শ সারা দেশে পৌঁছে দিতে আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন।’

শেখ হাসিনার উদ্ধৃতি দিয়ে সেখানে উপস্থিত তিন কেন্দ্রীয় নেতা দেশ রূপান্তরকে আরো বলেন, ‘ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগ এগিয়ে আছে। তবে সারা দেশের নেতাকর্মীরা সর্বোচ্চ সতর্ক না থাকলে বিপর্যয় ঘটতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভোটের মাঠে বিএনপি-জামায়াত জোটের অন্যতম কৌশল গুজব ছড়ানো এবং নাশকতা সৃষ্টি করা। গুজব ছড়িয়ে দিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যের তৎপরতা দুর্বল করে দেওয়া। এগুলোতে দলীয় নেতাকর্মীদের কান দেওয়া যাবে না বলে জানান তিনি। ভোটের দিন শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকতে হবে। সুযোগ পেলেই বিএনপি-জামায়াত অনুসারীরা হঠাৎ করে কেন্দ্র দখল করবে, ব্যালটে সিল মারবে। এটা মোকাবিলা করতে হলে আওয়ামী লীগের সবাইকে দল বেঁধে কেন্দ্রের আশপাশে থাকতে হবে।’

জানা যায়, দলীয় সভাপতির এ নির্দেশনা সারা দেশে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। উপজেলা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও প্রার্থীদের এসএমএসের মাধ্যমে, কোথাও কোথাও সরাসরি ফোন করে জানিয়েছেন দলের দুই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান।

এ প্রসঙ্গে আবদুর রহমান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বিশেষ কিছু নির্দেশনা দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে এরই মধ্যে মোবাইল ফোনে জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ বার্তা হলো ভোটগ্রহণ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রেই সতর্ক পাহারায় থাকতে হবে আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে।’