নোয়াখালীতে এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ|114421|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০
নোয়াখালীতে এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ
নোয়াখালী প্রতিনিধি

নোয়াখালীতে এক নারীকে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরের দুর্গম এলাকায় এক নারীকে ঘর থেকে তুলে নিয়ে দল বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার ভোটের দিন রাতে উপজেলার মধ্য বাগ্যার ৮নং কলোনির এ ঘটনায় গুরুতর আহত ওই নারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ধানের শীষে ভোট দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে আওয়ামী লীগের লোকেরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হলেও পুলিশ তা নাকচ করে বলছে, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. আনোয়ারুল আজিম দেশ রূপান্তরকে বলেন, গতকাল সোমবার দুপুর ১২টা ২৫ মিনিটে ওই নারীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার শরীরে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয়। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ধর্ষিতার স্বামী সিএনজি অটোরিকশাচালক দেশ রূপান্তরকে বলেন, রবিবার রাত ১০টার দিকে স্থানীয় একই এলাকার সোহেল, আলাউদ্দিন, স্বপন, আনিস, আনোয়ার, আবু মাঝি, হেদু মাঝি আরো দুই-তিনজনকে নিয়ে তার বাড়িতে এসে পুলিশ পরিচয়ে দরজা খুলতে বলে। তিনি দরজা খুললে তারা ঘরে ঢুকে তার হাত-পা-মুখ বেঁধে তার স্ত্রীকে ঘরের বাইরে নিয়ে ধর্ষণ করে। ভোরে তার বাড়ির পাশ থেকে স্ত্রীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

তার দাবি, ধর্ষকরা সবাই আওয়ামী লীগের কর্মী। তার স্ত্রী ধানের শীষে ভোট দিয়েছিল বলে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা তাকে ধর্ষণ করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফোনে চরজব্বার থানার ওসি নিজামউদ্দিন দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘একজন সিএনজিচালকের পরিবার ধানের শীষে ভোট দিলেই কী আসে যায়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ধর্ষিতার স্বামী থানায় কয়েকজনের নামে এজাহার দিয়েছেন।’ নোয়াখালী পুলিশ সুপার ইলিয়াস শরীফ বলেন, তিনি ঘটনা শুনেছেন এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। অবশ্যই তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুবর্ণচর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট ওমর ফারুক ধর্ষণের ঘটনা বিষয়ে দোষীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান।