মনমোহনকে নিয়ে সিনেমা, অভিযোগ প্রোপাগান্ডার|116563|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৬:২৮
মনমোহনকে নিয়ে সিনেমা, অভিযোগ প্রোপাগান্ডার
অনলাইন ডেস্ক

মনমোহনকে নিয়ে সিনেমা, অভিযোগ প্রোপাগান্ডার

মনমোহন সিংয়ের চরিত্রে অনুপম থের। ছবি: ফেসবুক থেকে

বেশ আলোচনা তুলে মুক্তি পেয়েছে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের ক্ষমতা থাকাকালীন কিছু ঘটনা নিয়ে সিনেমা ‘দ্য অক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’। দেশটির সাধারণ নির্বাচনের আগে মুক্তি পাওয়া সিনেমাটিকে কেউ কেউ বলছে প্রোপাগান্ডা। স্থানীয় একটি সংবাদমাধ্যমের রিভিউতে সেই কথাই ওঠে এসেছে।

ওই রিভিউতে বলা হচ্ছে, প্রাক নির্বাচনী পর্বে পরিচালক বিজয় গুট্টে যে ছবি বাজারে আনলেন, তাতে না আছে যুক্তি, না আছে মাত্রা। অথচ তাকে ‘সত্য’ বলে চালানোর চেষ্টা হচ্ছে। ‘দি অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’ ছবিটিকে একমাত্রিক বললেও বাড়িয়ে বলা হয়।

আরও বলা হয়, অথচ ঘটনা অসত্য নয়। ২০০৪ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত দু’পর্বে ইউপিএ সরকারের আমলে নাটকের অভাব ছিল না। সরকার গঠনের সূচনা পর্বেই নাটকীয়ভাবে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন সোনিয়া গান্ধী। প্রস্তাব করেছিলেন মনমোহন সিংয়ের নাম। কেন করেছিলেন? ব্যাখ্যা অনেক। তাতে মনের মাধুরী যেমন আছে, আছে তথ্যও।

মূলত সাংবাদিক ও মনমোহনের প্রাক্তন মিডিয়া উপদেষ্টা সঞ্জয় বারুর একই নামের বই অবলম্বনে নির্মিত হয় ‘দি অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’। কিন্তু রিভিউয়ার বলছেন, বইটি সঞ্জয়ের দৃষ্টিভঙ্গিতে লেখা হলেও সিনেমা বলছে এ বর্ণনাই একমাত্র সত্য। বলা হচ্ছে,  ‘ফিকশন, তবে সত্য ঘটনা অবলম্বনে।’ এমন সতর্কতা দিলেই চলতো। যদিও ছবিতে নেতা-মন্ত্রীদের নাম পর্যন্ত অপরিবর্তিত। ফলে স্বাভাবিক কারণেই তিনি পক্ষপাতদুষ্ট, এই অভিযোগ উঠছে।

মনমোহন চরিত্রে অভিনয় করেছেন অনুপম খের। তার সম্পর্কে বলা হয়, লং শটে মনমোহনের চরিত্রে অনুপম খের বেশ। তবে ক্লোজ শটে মনে হয়েছে, মনমোহনের কিছু ফুটেজ ধরিয়ে দিয়ে অনুকরণের হোমওয়ার্ক দেওয়া হয়েছিল তাকে। অনুকরণ অভিনয় নয়। অনুপম ‘মিমিক্রি’ করেছেন।

আরও বলা হয়, সোনিয়ার চরিত্রে সুজান বার্নার্ট দৃশ্যত মানিয়ে গিয়েছেন। তবে তার চরিত্রে হাসি নেই, অভিব্যক্তি নেই, এমনকী, কোনো রাজনীতিও নেই। যেন প্রতিটি শটের আগে নিমপাতার রস খাইয়ে তাঁকে বলে দেওয়া হয়েছিল, কাঠের পুতুলের মতো চিত্রনাট্য উগরে যেতে হবে। আর রাহুলের চরিত্রে অর্জুন মাথুর অতি-অভিনয়ের পুরস্কার পাবেন।

একদম শেষ বলা হচ্ছে, সত্য কী?—‘দি অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’ কোন সত্যে পৌঁছাল তবে? ‘দুষ্টু’লোকেরা বলছেন প্রোপাগান্ডায়।