এপ্রিলের ১৬-২০ তারিখের মধ্যে পাকিস্তানে হামলা চালাবে ভারত!|134653|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৭ এপ্রিল, ২০১৯ ১৫:০৭
এপ্রিলের ১৬-২০ তারিখের মধ্যে পাকিস্তানে হামলা চালাবে ভারত!
অনলাইন ডেস্ক

এপ্রিলের ১৬-২০ তারিখের মধ্যে পাকিস্তানে হামলা চালাবে ভারত!

ভারতের জাতীয় নির্বাচনের প্রাক্কালে আঁতকে ওঠার মতো ‘গোয়েন্দা তথ্য’ ফাঁস করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি। তিনি দাবি করেছেন, এপ্রিলের তৃতীয় সপ্তাহে পাকিস্তানে সামরিক হামলা চালাতে পারে ভারত।

ডন জানায়, দিল্লিকে এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ থেকে নিবৃত্ত রাখতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বানও জানিয়েছেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

রোববার মুলতানে এক সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদ কোরেশি বলেন, ‘ভারত নতুন পরিকল্পনা আঁটছে এমন নির্ভরযোগ্য গোয়েন্দা তথ্য’ সরকারের কাছে আছে।

তিনি বলেন, “(ভারত) প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে, পাকিস্তানের ওপর আরেকটি হামলার সম্ভাবনা আছে। আমাদের কাছে থাকা তথ্য মতে, এপ্রিলের ১৬-২০ তারিখের মধ্যে এ হামলা হতে পারে।”

বিষয়টি ব্যাখ্যা করে পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে পুলওয়ামার মতো আরেকটি দুর্ঘটনা মঞ্চায়ন করা হতে পারে। পাকিস্তানে হামলাকে বৈধতা দিতে এবং কূটনৈতিক চাপ বাড়াতে সেটাকে ব্যবহার করা হবে।”

তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, “যদি এমনটা হয়, এই অঞ্চলের শান্তি এবং স্থিতিশীলতার ওপর এ ঘটনার প্রভাব আপনারা কল্পনা করতে পারেন!”

মাহমুদ কোরেশি বলেন, পাকিস্তান ইতোমধ্যে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্যকে এ বিষয়ে অবহিত করেছে এবং পাকিস্তানের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে।

তিনি বলেন, “আমরা মনে করি, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এই কাণ্ডজ্ঞানহীন আচরণের বিষয়টি নজরে নেবে এবং তাদেরকে (ভারত) এ পথে হাঁটা থেকে নিবৃত্ত রাখবে।”

এসময় গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানি ভূখণ্ডে ভারতীয় আগ্রাসনের ঘটনায় নীরব থাকায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কড়া সমালোচনা করেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ শাহ কোরেশি।

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় সিআরপিএফ গাড়িবহরে এক আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলায় কমপক্ষে ৪৯ জন সিআরপিএফ সদস্য নিহত হন। আহত হন আরও ডজনখানেক।

পরে ২৬ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের বালাকোটে কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন জইশ-ই-মুহাম্মদের কথিত আস্তানায় বিমান হামলা চালিয়ে প্রায় ৩৫০ জন জঙ্গিকে হত্যার দাবি করে ভারত। যদিও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ওই ঘটনায় কেবল একজন স্থানীয় বাসিন্দা আহত হয়েছেন।

ভারতের বিমান হামলার জবাবে পরদিন ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের আকাশে হানা দেয় পাক যুদ্ধবিমান। এসময় ‘ডগ ফাইটে’ একটি ভারতীয় মিগ-২১ যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত হয় এবং এর পাইলট অভিনন্দনকে আটক করে পাকিস্তান।

নিজের বিমানটি বিধ্বস্ত এবং আটক হওয়ার আগে অভিনন্দন একটি পাকিস্তানি এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার দাবি করে আসছে ভারতও। যদিও এবিষয়ে পর্যাপ্ত তথ্য-প্রমাণ দিতে পারেনি ভারত।

একই সময়ে ভারত অধিকৃত কাশ্মীর অংশে একটি এমআই-১৭ মডেলের ভারতীয় হেলিকপ্টারও বিধ্বস্ত হয়। এতে বিমান বাহিনীর ছয় কর্মকর্তাসহ সাতজন নিহত হন।

অবশ্য পাকিস্তান দুটি ভারতীয় বিমান ভূপাতিত করার দাবি করলেও কোনো হেলিকপ্টার ভূপাতিত করার দাবি জানায়নি। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘ফ্রেন্ডলি ফায়ারে’ ভারতই হয়তো নিজেদের কপ্টারটি ভূপাতিত করেছে। বিষয়টি তদন্ত করছে ভারত।