ঢাবিতে কনসার্ট বাতিল|136200|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০
বৈশাখী আয়োজনে ভাঙচুর
ঢাবিতে কনসার্ট বাতিল
ঢাবি প্রতিনিধি

ঢাবিতে কনসার্ট বাতিল

পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মল চত্বরে লোকসংগীত উৎসব ও কনসার্টস্থলে ছাত্রলীগের একটি পক্ষ ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের দুটি পক্ষ। এতে আহত হয় ৭ জন। এ ছাড়াও ঢাবির বিভিন্ন হলে একাধিক ছাত্রলীগ নেতার কক্ষ ভাঙচুর করা হয়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কনসার্টের অনুমতি বাতিল করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

গত শুক্রবার গভীর রাতে উৎসবস্থলে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ হয়। গতকাল শনিবার সকালে দ্বিতীয় দফায় আগুন ধরায় ‘ছাত্রলীগের’ নেতাকর্মীরা। এর আগে কোমল পানীয়ের ব্র্যান্ড মোজোর পৃষ্ঠপোষকতায় চৈত্রসংক্রান্তি ও বৈশাখ বরণে ১৩ ও ১৪ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। কনসার্টে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) সহযোগী বলে জানায় ছাত্রলীগ। এতে জেমস, মিলা, ওয়ারফেজ, আর্টসেল ও ফিড ব্যাকসহ বেশ কয়েকটি ব্যান্ডের সংগীত পরিবেশনের কথা ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের কাছ থেকে জানা যায়, গত শুক্রবার গভীর রাতে মল চত্বরে প্রথমে ১০ থেকে ১২টি বাইক এসে কর্মচারীদের কাজ বন্ধ করে চলে যেতে বলে। এরপর কর্মচারীরা কারণ জানতে চাইলে তাদের গালিগালাজ করা হয়। এর কিছুক্ষণ পর আরও ১০০ থেকে ১৫০ জন বাইক নিয়ে আসে। তারা মলচত্বরে মঞ্চের সামনে বিভিন্ন ধরনের সাউন্ড বক্স ভাঙা শুরু করে। এই সময় বৈশাখ উপলক্ষে তৈরি করা ফেস্টুনে আগুন দেওয়া হয়; ফ্রিজ ভাঙা হয়। এরপর বাইক নিয়ে তারা চলে যায়।  

ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারী একদল নেতাকর্মী ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, গতকাল শনিবার সকালে দুটি বাইকে করে ৪ জন মঞ্চের ডান পাশে বেশ কিছু সাউন্ড বক্সে পেট্রল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে আয়োজকরা সব সরঞ্জাম নিয়ে চলে যান। 

জানতে চাইলে ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের অভিযোগ, সংগঠনের সভাপতি হওয়া সত্ত্বেও এ আয়োজন সম্পর্কে তাকে কিছুই জানানো হয়নি। কারা ভাঙচুর করেছে, তিনি এ বিষয়ে জানেন না।

ঢাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, সংগঠনের সভাপতি শোভনকে বৈশাখের আয়োজনের পুরো বিষয় সম্পর্কে আগেই জানানো হয়েছে।

ডাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর বলেন, কনসার্টের আয়োজক ডাকসু নয়। প্রশাসন চাইলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ ঘটনার বিচার করতে পারে।

কনসার্টের অনুমতি বাতিল করা হয়েছে বলে জানিয়ে ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘অনিবার্য কারণবশত অনুমতি বাতিল করা হয়েছে।’