চাকরিজীবীর ভ্রমণ পরিকল্পনা|142544|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ মে, ২০১৯ ০০:০০
চাকরিজীবীর ভ্রমণ পরিকল্পনা

চাকরিজীবীর ভ্রমণ পরিকল্পনা

বেড়াতে যাওয়ার ক্ষেত্রে চাকরিজীবীদের স্বাধীনতা কম। নির্দিষ্ট ছুটির সীমাবদ্ধতার মধ্যে ভ্রমণ পরিকল্পনা করতে হয়। সারা বছর ধরে অনেক মানসিক চাপের মধ্য থেকে কাজ করতে হয় তাই ভ্রমণ খুবই জরুরি। কীভাবে ভ্রমণ করতে পারেন রইল তার পরামর্শ

ভ্রমণ পরিকল্পনা করতে হবে অন্তত এক বছর আগে। যদি এক বছর আগে না পারা যায় তাহলে ছয় মাস আগে অবশ্যই করতে হবে।

ভ্রমণ পরিকল্পনায় ৫টি বিষয় স্থায়ী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কোথায় বেড়াতে যাবেন, কে কে বেড়াতে যাবেন, কত তারিখ যাবেন এবং কত তারিখ ফিরবেন, কীভাবে যাবেন ও ফিরবেন এবং কোন মানের হোটেলে থাকবেন। সিদ্ধান্ত হবে স্থায়ী।

আপনি যত আগে ভ্রমণ পরিকল্পনা করবেন এবং তথ্য সংগ্রহ করে যাচাই-বাছাই করবেন ভ্রমণে তত অর্থ সাশ্রয় ও সার্থক হবে।

আগে পরিকল্পনা করা থাকলে স্পেশাল অফারগুলোর দিকে নজর রাখতে পারবেন। এয়ার লাইন্স, হোটেল, ট্যুর অপারেটর এবং অন্যান্য সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান স্পেশাল মূল্যে ভ্রমণ অফার করে।

ভ্রমণে আছে পিক এবং অফপিক সিজন। শীতে হোটেলগুলোর দাম বেশি থাকে। গ্রীষ্ম বা বর্ষায় কম। চাইলে অফপিক সিজন বেছে নিতে পারেন। তাতে খরচ অনেক কমে যাবে।

সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে সরকারি ছুটি মিলে অনেক সময় বেড়ানোর উপযুক্ত সুযোগ মিলে যায়। এই সময়গুলোতে পরিকল্পনা করুন। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে অন্তত ছয় মাস আগেই হোটেল, বিমানের টিকিট বুক করে ফেলুন। এতে ভ্রমণ সাশ্রয়ী ও নির্ঝঞ্ঝাটও হবে।

অনেক সময় খরচ বেশি বাঁচাতে গিয়ে ভ্রমণের আনন্দ মাটি করে ফেলি। খরচ বাঁচানো ভালো তবে মূল উদ্দেশ্য যেন ধূলিসাৎ না হয়। খরচ কমানোর চেয়ে আনন্দের দিকে নজর দিন।