ফের পাকা ধানে আগুন|142598|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ মে, ২০১৯ ০০:০০
ফের পাকা ধানে আগুন
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

ফের পাকা ধানে আগুন

টাঙ্গাইলে আবারও পাকা ধানে আগুন দিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে এক কৃষক। গত সোমবার বিকেলে বাসাইলের কাশিল গ্রামের

কৃষক নজরুল ইসলাম খান নলী বিলের বোরো ধানক্ষেতে আগুন ধরিয়ে দেন। এর আগে রবিবার দুপুরে কালিহাতী উপজেলার পাইকড়া ইউনিয়নের বানকিনা গ্রামের আব্দুল মালেক তার পাকা ধানে আগুন দিয়ে ধানের দাম না পাওয়ার প্রতিবাদ জানান। 

কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ধান কাটার শ্রমিকের মূল্য প্রায় এক হাজার টাকা। তার পরও শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না। অপরদিকে ধান বিক্রি করতে হচ্ছে ৫০০ টাকা করে। এ ছাড়াও ধানক্ষেতে ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে ধানের শিষ চিটা হয়ে শুকিয়ে গেছে। বারবার স্থানীয় কৃষি অফিসে        পৃষ্ঠা ২ কলাম ৭ >

ফের পাকা ধানে আগুন

 

 

 জানানো হলেও তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

তিনি আরও বলেন, ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হওয়া প্রায় ৫৬ শতাংশের ধান কেটেছি। এই ৫৬ শতাংশ জমিতে মাত্র চার মণ ধান হয়েছে। ৫৬ শতাংশ জমিতে আমার প্রায় ২৫ হাজার টাকার ঘাটতি হয়েছে। তাই দিশেহারা হয়ে ২০ শতাংশ পাকা ধানক্ষেতে আগুন ধরিয়ে দিলে স্থানীয়রা এসে নিভিয়ে দেয়। আমি এবার ১২ পাকি জমিতে বোরো আবাদ করেছি। এর আট পাকি জমির ধান ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত ও চিটা হয়েছে। এবার আমার বোরো আবাদে অনেক টাকা ঘাটতি হবে।

বাসাইল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার রূপালী খাতুন বলেন, ধানে আগুন দেওয়ার বিষয়টি শুনে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। শ্রমিকের দাম বেশি ও ধানের দাম কম হওয়ায় ওই কৃষক দিশেহারা হয়ে ধানক্ষেতে আগুন দেন।

তিনি আরও বলেন, উপজেলায় এবার ১১ হাজার ১শ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। ফলনও ভালো হয়েছে। কিন্তু বেশ কয়েক কৃষকের ৯ হেক্টর জমি ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হয়েছিল। পরে তাদের পরামর্শ দেওয়া হলেও তারা দুইবার স্প্রে করেনি। এর ফলে কয়েক কৃষকের ধান নষ্ট হয়।