পুরান ঢাকার অভিজাত ইফতার|142819|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৬ মে, ২০১৯ ০০:০০
পুরান ঢাকার অভিজাত ইফতার

পুরান ঢাকার অভিজাত ইফতার

একটি জিলাপি এক কেজি, আস্ত মুরগির রোস্ট, বড় বাপের পোলায় খায় বা সুতি-কাবাব এ ধরনের ইফতার মানেই পুরান ঢাকার চকবাজার। দুপুর ১২টার পর থেকে শুরু হয় ইফতার বিক্রির আয়োজন। পুরান ঢাকার ইফতার বাজার ঘুরে বিস্তারিত জানালেন রানা আহমেদ

ইফতারিতে ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের কাবাব চেখে দেখতে পুরান ঢাকার বিকল্প নেই। জালি-কাবাব, টিক্কা-কাবাব, সুতি-কাবাব ইত্যাদি। জালি-কাবাবের দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, খাসির কাবাব ৫০, টিক্কা ৪০ এবং সুতি-কাবাব প্রতিটি ১২৫ টাকা।

এ ছাড়া গরু ও খাসির এক কেজি সুতি-কাবাবের দাম পড়বে ৫০০ টাকা। রমজান মাসে পুরান ঢাকায় ইফতার করতে গেছেন অথচ ‘বড় বাপের পোলায় খায়’ নামের খাবারের নাম জানেননি, এমন মানুষ কম। প্রায় ৭৫ বছর ধরে প্রচলিত এই পদ পুরান ঢাকার ইফতারির অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে সমাদৃত হয়েছে। এটি তৈরিতে ডিম, গরুর মগজ, আলু, ঘি, কাঁচা ও শুকনো মরিচ, গরুর কলিজা, মুরগির মাংসের কুচি, মুরগির গিলা-কলিজা, সুতি-কাবাব, মাংসের কিমা, চিঁড়া, ডাবলি, বুটের ডাল, মিষ্টি কুমড়াসহ ১৫ পদের খাবার আইটেম এবং ১৬ ধরনের মসলা প্রয়োজন হয়।  বর্তমানে এর দাম প্রতি কেজি ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা।

ইফতারে যারা ভারী খাবার খেতে চান, তাদের জন্য রয়েছে মুরগি ফ্রাই রোস্ট, খাসির রান, কোয়েল পাখির রোস্টসহ আরও লোভনীয় খাবার। প্রতি টুকরো মুরগির ফ্রাইয়ের দাম ২৫০ টাকা এবং রোস্ট ৩০০ টাকা।

এ ছাড়া আস্ত মুরগির রোস্ট পাওয়া যাবে আকৃতিভেদে ৩০০ থেকে ৬০০ টাকায়। চিকেন চাপ ও রোলের দাম ৪০ থেকে ৫০ টাকা। কোয়েল পাখির রোস্ট পাওয়া যাবে প্রতিটি ৬০ টাকায়। মুরগি ছাড়া খাসি বা গরুর মাংস খাওয়ার সাধ হলে, খাসির রান কিংবা গরুর রোস্ট তো আছেই। এ ক্ষেত্রে গরুর মাংসের রোস্টের দাম ৩০০ টাকা এবং খাসির রান বা খাসির লেগ রোস্ট নামের আইটেমের দাম ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা। পুরান ঢাকার খাসির হালিম বেশ জনপ্রিয়। বিভিন্ন দোকান ঘুরে দেখা গেল, প্রতি বাটি খাসির হালিম বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৩৫০ টাকায়। মাটির পাত্রে ওই হালিমের স্বাদ নিতে চাইলে অপেক্ষা করতে হবে অনেকক্ষণ। কারণ লম্বা লাইন। ইফতারের মধ্যে শাহি জিলাপির বেশ নামডাক রয়েছে। বড় চাকতি আকৃতির শাহি জিলাপির দাম কেজিপ্রতি ১২০ থেকে ১৬০ টাকা।

এ ছাড়া ছোট জিলাপি প্রতি কেজি ১২০ টাকা এবং রেশমি নামের এক ধরনের জিলাপি প্রতি কেজি ২১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যারা পরোটা খেতে ভালোবাসেন তারা সুস্বাদু কিমা পরোটা কিনে নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে গরু, মুরগি এবং খাসির কিমা পরোটার দাম প্রতি পিস ৪০ থেকে ৪৫ টাকা। সাধারণ পরোটা পাওয়া যাবে ৩০ টাকায়। আছে নানা ধরনের শরবত। এসব শরবত লিটারপ্রতি ৬০ টাকা থেকে শুরু করে ২২০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে।

কোথায় পাবেন : পুরান ঢাকার চকবাজার, সদরঘাট, বাবুবাজার, নবাবপুর রোড, কোর্ট-কাচারি এলাকা, ওয়ারী, চানখাঁরপুল, মিটফোর্ড, আরমানীটোলাসহ অন্যান্য প্রায় সব এলাকার খাবার দোকান, রেস্টুরেন্টসহ ভ্রাম্যমাণ দোকানগুলোতে রমজান মাসে নানা ধরন ও স্বাদের ইফতার পাবেন।