লোকসভা নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপ কতটুকু সত্য হয়? |143598|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৯ মে, ২০১৯ ২১:৪৩
লোকসভা নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপ কতটুকু সত্য হয়?
অনলাইন ডেস্ক

লোকসভা নির্বাচন: বুথ ফেরত জরিপ কতটুকু সত্য হয়?

ভারতে শেষ হয়েছে লোকসভা নির্বাচন। সাত দফা ভোট গ্রহণ শেষে এখন প্রকাশ হতে শুরু করেছে বুথ ফেরত জরিপে। একাধিক জরিপে দেখা গেছে, ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) নেতৃত্বাধীন জোটই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে চলেছে।

নির্বাচন কমিশন ফলাফল ঘোষণা করবে ২৩ মে। কিন্তু বুথ ফেরত ফলাফলে বিজেপির জয়জয়কার হলেও আসলে কতটুকু সত্য এসব জরিপ।

মূলত ভোট দিয়ে ভোটকেন্দ্র থেকে বেরোনোর পরই ভোটারদের মধ্যে এ জরিপ চালানো হয়। বয়স, লিঙ্গ, ধর্ম, জাত-এগুলোকে মাপকাঠি হিসাবে ধরে চালানো হয় বুথ ফেরত জরিপ। বেশ কয়েকটি সংস্থা এই জরিপ চালায়। এতে যুক্ত থাকে সংবাদমাধ্যমগুলোও।

কোন দল কেমন ফল করবে, তার একটা ইঙ্গিত এইসব জরিপ থেকে পাওয়া যায়। জনগণের প্রতিনিধিত্ব আইন (১৯৫১)-এর ১২৬-এ ধারা অনুযায়ী শেষ দফা ভোটের আধ ঘণ্টা পর থেকে বুথ ফেরত জরিপ প্রকাশ করা যায়।

ষাটের দশকে দিল্লির সেন্টার ফর দ্য স্টাডি অব ডেভেলপিং সোসাইটিজ প্রথম এ রকম জরিপ শুরু করেছিল। এরপর আশির দশকে সংবাদমাধ্যমগুলোর দ্বারা ভোট জরিপ শুরু হয়।

ভোট শেষ হওয়ার আগে বুথফেরত জরিপ প্রকাশ না করার জন্য ২০০৪ সালে কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রণালয়ের প্রতি আবেদন জানায় নির্বাচন কমিশন। এই বিষয়ে সংশোধনী প্রস্তাব আনার আবেদনও জানানো হয়।

তবে বুথ ফেরত জরিপ আদৌও কতটা বিশ্বাসযোগ্য, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। কারণ ২০০৪ সালে বিজেপি-এনডিএ জোট ক্ষমতায় আসবে এমনটা বলা হয়েছিল একাধিক জরিপে। কিন্তু সেটি মিথ্যা প্রমাণিত হয়।  

একইভাবে ২০০৯ সালের লোকসভায়ও কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোট যথেষ্ট সংখ্যক আসন পাবে, এমনটা বলা হয়েছিল বুথ ফেরত জরিপে। সেটিও মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

এ দিকে এবার লোকসভা নির্বাচন শেষে দেখা যাচ্ছে, নিউজ এইটিন, টাইমস নাও, রিপাবলিক টিভি, ইন্ডিয়া নিউজ-পোলস্ট্র্যাট, রিপাবলিক টিভি-জন কি বাত পাঁচটি সংবাদমাধ্যমের জরিপে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে ফের সরকার গঠন করতে চলেছে বিজেপি জোট।

২০১৯ সালে ভারতের লোকসভা নির্বাচন শুরু হয়েছিল ১০ এপ্রিল। সপ্তম দফার মধ্যে দিয়ে তা শেষ হয় আজ রবিবার। আগামী বৃহস্পতিবার ফল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। অতএব সেদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে এসব জরিপ কতটুকু সত্য ছিল আর মিথ্যা।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা