চট্টগ্রামে হাইটেক পার্ক নির্মাণে দরপত্র শিগগিরই|148098|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০
চট্টগ্রামে হাইটেক পার্ক নির্মাণে দরপত্র শিগগিরই
সুুবল বড়ুয়া, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে হাইটেক পার্ক নির্মাণে দরপত্র শিগগিরই

চট্টগ্রামে হাইটেক পার্ক নির্মাণে শিগগিরই দরপত্র আহ্বান করা হবে। নগরের বিএফআইডিসি রোড সংলগ্ন কালুরঘাট বিসিক শিল্প এলাকায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) ১১ দশমিক ৫ একর জমিতে প্রায় ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে পার্কটি নির্মাণ করা হবে।

গত বছরের ১৮ জুলাই বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চসিকের চুক্তির পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ মার্চ এ দুই সংস্থার মধ্যে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার ও জেলা পর্যায়ে হাইটেক পার্ক স্থাপনে সমঝোতা স্মারক সই হয়। চসিক মিলনায়তনে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম এনডিসি ও চসিকের পক্ষে প্রধান নির্বাহী মো. সামসুদ্দোহা সমঝোতা স্মারকে সই করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৫ সালে ঢাকাসহ দেশের ১২ জেলায় হাইটেক পার্ক নির্মাণের কাজ শুরু হলেও জায়গার অভাবে চট্টগ্রামে নির্মাণ করা সম্ভব হয়নি। পরে নিজস্ব জমিতে হাইটেক পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নেয় চসিক।

এর পরিপ্রেক্ষিতে নগরের কালুরঘাট শিল্প এলাকায় অত্যাধুনিক হাইটেক পার্কটি নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানান চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা। দেশ রূপান্তরকে তিনি বলেন, ‘হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চসিকের সমঝোতা স্মারক চুক্তি অনুযায়ী হাইটেক পার্ক নির্মাণকাজ এগোচ্ছে। সয়েল টেস্ট করা হয়েছে। শিগগিরই দরপত্র আহ্বান করা হবে।’

চসিক সূত্র জানায়, প্রস্তাবিত জায়গাটিতে হাইটেক পার্ক নির্মাণে উদ্যোগ নেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। গত বছরের ২৩ জুলাই হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম স্বাক্ষরিত একটি চিঠির মাধ্যমে পার্ক নির্মাণে সম্মতি দেওয়া হয়। চিঠিতে ‘হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ’ চসিক প্রস্তাবিত জমিটি হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষকে কোন প্রক্রিয়ায় হস্তান্তর হবে, জানতে চাওয়া হয়। পাশাপাশি ওই জমির ‘পর্চা, নকশা, স্কেচম্যাপ ও জমির তফসিল পাঠাতে বলা হয়েছিল। সেই অনুযায়ী সবকিছু পাঠানোর পর কর্তৃপক্ষ পরিদর্শন করে জমিটিকে হাইটেক পার্ক নির্মাণের জন্য উপযুক্ত মনে করে। পরবর্তী সময়ে দুই সংস্থার মধ্যে সমঝোতা চুক্তি হয়।

চুক্তি অনুযায়ী চসিকের ১১ দশমিক ৫৫ একর জায়গা হাইটেক পার্ক নির্মাণের জন্য বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়েছে। বিশ^ব্যাংকের সহায়তায় পার্কটি নির্মাণে ২০০ কোটি টাকা ব্যয় হবে।

এর আগে এই জমিতে গার্মেন্টস পল্লী গড়ে তুলতে চসিক ও বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) মধ্যে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছিল। চুক্তির মেয়াদ ধরা হয়েছিল ২০১৮ সাল পর্যন্ত। পরবর্তীকালে চুক্তির মেয়াদ শেষ হলেও কোনো অগ্রগতি হয়নি।

সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘সরকারের পরিকল্পনা অনুযায়ী আইটি সেক্টরকে আরও উন্নত করতে চট্টগ্রাম নগরে হাইটেক পার্ক নির্মাণে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পার্কটি নির্মিত হলে এতে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।’