বিশ্বশান্তি সূচকে ৯ ধাপ পেছাল বাংলাদেশ|148443|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০
বিশ্বশান্তি সূচকে ৯ ধাপ পেছাল বাংলাদেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্বশান্তি সূচকে ৯ ধাপ পেছাল বাংলাদেশ

বৈশ্বিক শান্তি সূচকে (জিপিআই) এবার গতবারের চেয়ে ৯ ধাপ পিছিয়ে ১০১তম স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৮ সালেও আগের বছরের চেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ পেয়েছিল ৯২তম স্থান। গত মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডনে এ সূচক প্রকাশিত হয়। এতে দক্ষিণ এশিয়ার দুই প্রতিবেশী ভারত  (১৪১তম) ও পাকিস্তানের (১৫৩তম) চেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ।

২০০৮ সাল থেকে শান্তিপূর্ণ দেশের শীর্ষে থাকা আইসল্যান্ড এবারও সূচকে প্রথম স্থান ধরে রেখেছে। এরপরই রয়েছে যথাক্রমে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, পর্তুগাল ও ডেনমার্ক।

অস্ট্রেলিয়াভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড পিস (আইইপি) বিশ্ব শান্তি সূচক-২০১৯ তৈরি করেছে। সূচকে বিশ্বের স্বাধীন ১৬৩টি দেশের নাগরিকদের শান্তিপূর্ণ জীবনযাপন, অর্থনৈতিক মূল্য এবং শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে দেশগুলোর নেওয়া পদক্ষেপের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই সূচক তৈরি করা হয়। এ বছর বিশ্বজুড়ে সামান্য পরিমাণে শান্তি বেড়েছে বলে সূচকে বলা হয়েছে। জিপিআই প্রতিবেদন অনুযায়ী, এবার গড়ে শূন্য দশমিক ৯ শতাংশ হারে শান্তি বেড়েছে।

গত বছর যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া সূচকের তলানিতে থাকলেও এবার আফগানিস্তান (১৬৩তম) সেই স্থান দখল করেছে। বৈশ্বিক শান্তি সূচকের ১৩তম সংস্করণে সিরিয়া ১৬২তম, দক্ষিণ সুদান ১৬১তম, ইয়েমেন ১৬০তম এবং ইরাক ১৫৯তম অবস্থানে রয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, চীন, বাংলাদেশ ও ভারতের মতো দেশগুলোতে প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি। এই অঞ্চলে ৩৯ কোটি ৩০ লাখ মানুষ প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঝুঁকিতে আছে। ২০১৮ সালে বাংলাদেশে সহিংসতার কারণে ব্যয় হয়েছে ২২ হাজার ২৯৬ মিলিয়ন ডলার যা জিডিপির তিন শতাংশ।

এতে আরও বলা হয়েছে, রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন বস্তিতে বসবাসরতদের ৮১ শতাংশই জলবায়ু উদ্বাস্তু। জলবায়ুর পরিবর্তনের কারণে তারা নিজেদের বাড়িঘর ছেড়ে ঢাকার বস্তিতে আশ্রয় নিয়েছে। ভবিষ্যতে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে যাওয়ার কারণে কমপক্ষে ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ফলে ১৬ শতাংশ ভূমি হারিয়ে যাবে।