আটক, গ্রেপ্তার নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংবাদ সম্মেলন বিষয়ে নীতিমালার নির্দেশ|164308|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৯ আগস্ট, ২০১৯ ১৫:৫৪
আটক, গ্রেপ্তার নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংবাদ সম্মেলন বিষয়ে নীতিমালার নির্দেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক

আটক, গ্রেপ্তার নিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংবাদ সম্মেলন বিষয়ে নীতিমালার নির্দেশ

কোনো অপরাধের অভিযোগে কাউকে আটক বা গ্রেপ্তারের পর এবং ঘটনার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত  আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সাংবাদিকদের কতটুকু অবহিত করতে পারবে সে বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশের আইজিপিকে একটি নীতিমালা তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী থেকে আসামি বনে যাওয়া তারই স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে জামিনের পর্যবেক্ষণে এ নির্দেশ দেন আদালত।

মিন্নির জামিন প্রশ্নে জারি করা রুল যথাযথ ঘোষণা করে বৃহস্পতিবার এই রায় দেন বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

মিন্নির পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেড আই (জহিরুল ইসলাম) খান পান্না। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে জামিনের বিরোধিতা করে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পি। 

এর আগে বুধবার মিন্নির জামিন প্রশ্নে হাইকোর্টের রুলের ওপর শুনানি শেষ হয়।

বৃহস্পতিবারের রায়ে আদালত বলেন, জামিনে থাকা অবস্থায় মিন্নি তার বাবার জিম্মায় থাকবেন। এই সময় তিনি গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে পারবেন না। এর ব্যত্যয় ঘটলে জামিন বাতিল হবে।

মিন্নির জামিনের পর্যবেক্ষণে বিচারক বলেন, এজাহারে আসামির নাম উল্লেখ না থাকা; গ্রেপ্তারের আগে দীর্ঘ সময় মিন্নিকে পুলিশ লাইনসে আটক রাখা এবং গ্রেপ্তারের প্রক্রিয়া; আদালতে হাজির করে রিমান্ড শুনানির সময় তার আইনজীবী নিয়োগের সুযোগ না পাওয়া; ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি সংশ্লিষ্ট ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক লিপিবদ্ধ করার আগেই আসামির দোষ স্বীকার সম্পর্কিত জেলা পুলিশ সুপারের বক্তব্য; তদন্তকারী কর্মকর্তার মতে মামলার তদন্ত শেষ পর্যায়ে, সুতরাং আসামি কর্তৃক তদন্ত প্রভাবিত করার কোনো সুযোগ না থাকায়; সর্বোপরি ফৌজদারি কার্যবিধির ৪৯৮, ৯৭ ধারার ব্যতিক্রম, অর্থাৎ আসামি একজন নারী- এ বিষয়গুলো বিবেচনা করে আমরা তাকে জামিন দেওয়া ন্যায়সঙ্গত মনে করছি এবং জারি করা রুলটি আমরা যথাযথ ঘোষণা করলাম। 

পাশাপাশি বরগুনায় রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় তদন্ত শেষ হওয়ার আগেই আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে জড়িয়ে সেখানকার পুলিশ সুপার যে বক্তব্য দিয়েছেন তা অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্ক্ষিত বলে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন হাইকোর্ট।