ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ২ কিশোরীকে যৌন নির্যাতন, প্রতিবাদ করায় হামলা|173321|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:৫৮
ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ২ কিশোরীকে যৌন নির্যাতন, প্রতিবাদ করায় হামলা
নওগাঁ সংবাদদাতা

ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ২ কিশোরীকে যৌন নির্যাতন, প্রতিবাদ করায় হামলা

নওগাঁর মান্দা উপজেলায় কারামপূজা শেষে বাড়ি ফেরার সময় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর দুই কিশোরীকে যৌন নির্যাতন করেছে বখাটেরা। গত বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে কালিসফা গণর মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এর প্রতিবাদ করলে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ভাঁরশো ইউনিয়নের কালিসফা পশ্চিমপাড়া পল্লীতে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে দুই নারীসহ পাঁচজন আহত হয়েছে। হামলার ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

হামলায় আহতরা হলো মিনতি রানী (৩৫), দুলি ওরাও (২৫), আনন্দ ওরাও (২২), সাগর ওরাও (১৯), শান্ত ওরাও (১৭)। তাদের মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আটকরা হলো দেলুয়াবাড়ী গ্রামের জেহাদ হোসেন (১৭), কালিসফা গ্রামের সুজন ইসলাম (১৭), ইউসুফ আলী (১৭) ও হাবিবুর রহমান (১৯)।

কালিসফা পশ্চিমপাড়া পল্লীর বাসিন্দা জনা সরদার দেশ রূপান্তরকে বলেন, বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে কালিসফা গণর মোড়ে কারামপূজা শেষে বাড়ি ফিরছিল ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর দুই কিশোরী। পথে দেলুয়াবাড়ী এলাকার নাজমুল হোসেন এক কিশোরীকে ঝাপটে ধরে। কিশোরীর চিৎকারে কালিসফা মন্দিরের পাশে একটি মুদি দোকানের ভেতরে আশ্রয় নেয় সে। ওই রাতেই বখাটে নাজমুলকে মুদি দোকান থেকে ধরে আধিবাসী পল্লীতে নেওয়া হয়। রাতে স্থানীয় লোকজনদের কাছে ক্ষমা চেয়ে দেলুয়াবাড়ী এলাকার বাবলু ও আলাউদ্দিন নাজমুলকে বাড়িতে নিয়ে যায়।

এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে নাজমুল হোসেনের নেতৃত্বে ৮-১০ যুবক আদিবাসী পল্লীতে অতর্কিত হামলা চালায়।

মান্দা থানার ওসি মোজাফফর হোসেন দেশ রূপান্তরকে জানান, যৌন নির্যাতনের শিকার এক কিশোরীর বাবা বৃহস্পতিবার দুপুরে ছয়জনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তার চারজনকে নওগাঁ জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।