বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

হারমানপ্রিতের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি

আপডেট : ১০ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:১৪ পিএম

রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরি। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের প্রথম। কিন্তু এমন ঐতিহাসিক কীর্তির পরও হারমানপ্রিত কাউরের মুখে হাসি ফুটল সামান্য। উচ্ছ্বাসের প্রকাশও তেমন নেই। শনিবার গায়ানায় এবারের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম দিনই হৈ চৈ ফেলে দিয়েছেন ভারতীয় অধিনায়ক। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫১ বলে ১০৩ রানের ইনিংস খেলে দলকে দিয়েছেন চ্যাম্পিয়নের মতো শুরু। কিন্তু হাসি নেই কেন হারমানপ্রিতের?

পেটের পেশীতে টান ছিল ব্যাটিংয়ের সময়। ছিল পিঠে ব্যথাও। কিন্তু ওসব নয়, মনের ব্যথাটাই হাসি ফুটতে দেয়নি হারমানপ্রিতের মুখে। প্রথম ভারতীয় নারী হিসেবে টি-টুয়েন্টির সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়ার পরও। কিছুদিন আগে বিতর্কে পড়েছিলেন। পাঞ্জাবের পুলিশের ডিএসপি বা ডেপুটি সুপারিনটেন্ডেন্ট পদে নিয়োগ পেয়েছিলেন। কিন্তু পরে প্রকাশ পেল, তার ডিগ্রির সনদই নাকি জাল! প্রতিবাদ করেছেন। কিন্তু ভারতীয় নারী ক্রিকেটের অন্যতম সেরা সুপারস্টার সেই থেকে সবার কাছ থেকে নিজেকে অনেকটা গুটিয়ে নিয়েছেন। শুধু ক্রিকেটেই মন দিয়েছেন খুব।

শুধু ক্রিকেটের মধ্যে থাকার ফলটাও মিলল হাতেনাতে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপ মিশনের শুরুতেই। গায়ানার প্রভিডেন্সে হারমানপ্রিতের দুর্ধর্ষ সেঞ্চুরি ভারতকে জিতিয়েছে ৩৪ রানে।

হারমানপ্রিত কাউর সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন মাত্র ৪৯ বলে যা মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে তৃতীয় দ্রুততম। ৫১ বলে ১০৩ রানের ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের বোলাররা দাঁড়াতেই পারেননি তার সামনে। হারমানপ্রিতের ইনিংসে ছিল ৭টি চার ও ৮টি ছক্কার মার। মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে যৌথভাবে এক ইনিংসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড এই ৮ ছক্কা।

ডানহাতি এই নামী ব্যাটারের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ১৯৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় ভারত। মেয়েদের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে দলীয় সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড এটি। আগেরটি ১৯১ রানের।

আর  ১৯৫ রানের টার্গেটে ছুটে নিউজিল্যান্ড ৯ উইকেটে ১৬০ রানে থামে। কিউইদের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপে এটিই ভারতের প্রথম জয়।

টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। হারমানপ্রিত কাউর যখন ক্রিজে নামেন তখন ভারতের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৪০। এর পর তিনি জেমিনা রদরিগেজকে নিয়ে ১৩৪ রানের জুটি গড়ে তোলেন যা ভারতীয় মেয়েদের পক্ষে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি তে যে কোনো উইকেটে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ রানের জুটি। জুটিতে রদরিগেজ করেন ৫৯ রান।

হারমানপ্রিত প্রথম ১৩ বলে করেন মাত্র ৫ রান। প্রথম ফিফটি তুলতে খেলেন ৩৩ বল। পরের অর্ধশত পূর্ণ করেন মাত্র ১৬ বলে। ইনিংসের শেষ ৫ ওভারে হারমানপ্রিত খেলেন ১৭ বল, এই সময় তিনি ৩০৫ দশমিক ৮৮ স্ট্রাইক রেটে করেন ৫২ রান।

মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টিতে প্রথম সেঞ্চুরি করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডিয়ান্ড্রা ডটিন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২০১০ সালে করা তার সেঞ্চুরিটি মেয়েদের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপেরও প্রথম।

ভারতীয়দের হয়ে আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টি তে প্রথম সেঞ্চুরি করেন সুরেশ রায়না। ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেন তিনি। আর আন্তর্জাতিক টি-টুয়েন্টির প্রথম সেঞ্চুরির মালিক ক্রিস গেইল। করেছিলেন ২০০৭ সালের প্রথম টি-টুয়েন্টি বিশ্ব আসরে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত