মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পাকিস্তানে সার্ক সম্মেলনে যাবে না ভারত

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০১৮, ০১:৪১ পিএম

সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগ এনে পাকিস্তানে দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা-সার্কের সম্মেলনে যোগ না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে ভারত।

বুধবার ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ জানান, কারতারপুরে ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে করিডোর নির্মাণের পরেও দুই দেশের মধ্যে সম্পর্কের উন্নতি হবে না, যদি না পাকিস্তান সন্ত্রাসীদের পৃষ্টপোষকতা দেয়া বন্ধ করে।

এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানায়, একদিন আগে সার্ক সম্মেলনে যোগ দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণে জানায় ইসলামাবাদ। কিন্তু সম্মেলনে ভারতের যোগ দেয়ার ব্যাপারে জোরালোভাবে ‘না’ জানালেন সুষমা।

যদিও একইদিন সীমান্তে করতারপুর করিডোর নির্মাণ উদ্বোধনের সময় লাহোরে এক অনুষ্ঠানে দু’দেশের মন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

হায়দ্রাবাদে সাংবাদিকদের সুষমা বলেন, “ইতোমধ্যে আমরা আমন্ত্রণ পেয়েছি। কিন্তু আমরা ইতিবাচক সাড়া দেইনি। ভারতের অভ্যন্তরে তাদেরকে সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে, অন্যথায় তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের আলোচনা নয়। আমরা সার্ক সম্মেলনেও অংশগ্রহণ করছি না।”

তবে করতারপুর করিডোর প্রসঙ্গে পাকিস্তানকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, “২০ বছর ধরে করতারপুর করিডোরের জন্য পাকিস্তানকে বলে আসছিল ভারত। আমি আনন্দিত যে, এই প্রথম তারা এ বিষয়ে ইতিবাচক সাড়া দিল।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আগামী ছয় মাসের মধ্যে করিডোরের কাজ সম্পূর্ণ হবে। এর ফলে পাকিস্তানের করতারপুর সাহিবে আসার জন্য ভারতের শিখ সম্প্রদায়ের ভিসার প্রয়োজন হবে না আর।

তিনি আরো বলেন, লাহোরের অনুষ্ঠানে দুই দেশের মন্ত্রীরা উপস্থিত থাকলেও সেখানে রাষ্ট্রীয়ভাবে দ্বি-পাক্ষিক কোনো আলোচনা হয়নি। ভারতের অভ্যন্তরে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করলে তবেই পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনা হবে। আলোচনার সঙ্গে করতারপুর করিডোর নির্মাণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের কোনো সম্পর্ক নেই।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে ১৯তম সার্ক সম্মেলন পাকিস্তানে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভারত ও বাংলাদেশসহ চারটি দেশ এতে যোগদানে অসম্মতি জানানোয় তা বাতিল হয়ে যায়। সংস্থাটির সর্বশেষ সম্মেলন হয়েছিল ২০১৪ সালে কাঠমুণ্ডুতে। দুই বছর পর পর সার্কভুক্ত দেশের প্রধানদের অংশগ্রহণে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

   
সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত