রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ত্বকহীন দেবতা

আপডেট : ০৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৪৪ পিএম

মেক্সিকোতে প্রাচীন এক সভ্যতার সন্ধান পাওয়া গেছে। মায়ান সভ্যতার পর এবারই সবচেয়ে বড় প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের দেখা পেলেন দেশটির প্রত্নতাত্ত্বিকরা। গত বৃহস্পতিবার মেক্সিকো সরকারিভাবে এক বিবৃতিতে এই প্রাচীন সভ্যতার নিদর্শনপ্রাপ্তির সংবাদ প্রকাশ করে। প্রাপ্ত সভ্যতার মূল দেবতার নাম শিপে টটেক। মানুষের কঙ্কালসদৃশ এই দেবতাকে বলা হচ্ছে ‘ত্বকহীন দেবতা’। তিনি উর্বরতা, কৃষি এবং যুদ্ধের দেবতা ছিলেন বলে ওই বিবৃতিতে বলা হয়। মেক্সিকোর পুয়েবলা রাজ্যের দাচিয়ান এলাকার পেপোলোকা ইন্ডিয়ান ধ্বংসাবশেষ খুঁড়তে গিয়ে নতুন এই সভ্যতার সন্ধান পাওয়া গেছে। প্রাথমিক খননকাজ থেকে দুটি খুলি এবং একটি ধড় উদ্ধার করা হয়। নৃতাত্ত্বিকরা বলছেন, প্রাপ্ত এই সভ্যতায় প্রধান পুরোহিতেরা দেবতা শিপেকে সন্তুষ্ট করতে কোনো মৃত ব্যক্তির শরীরের সকল চামড়া ছাড়িয়ে দিত। মেক্সিকোর তৎকালীন জীবনযাপনে এই সংস্কার খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। নাহুয়াতি ভাষায় এই উৎসর্গ অনুষ্ঠানকে বলা হয় ‘লাকাশিপেহুয়ালিজিটি’। বলা হয়, এ ধরনের উৎসর্গ অনুষ্ঠানে কোনো এক ব্যক্তিকে হত্যা করার পর তার চামড়া ছাড়িয়ে নেওয়া হতো। এরপর পেটের মাঝে ছিদ্র করে সেখানে সবুজ একটা পাথর বসানো হতো। স্থানীয়রা মনে করত, ওই সবুজ পাথরের প্রভাবে মৃতব্যক্তি আবার জীবিত হয়ে ফিরে আসবে। সূত্র : সিএনএন

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত