রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

চির সবুজ নায়কের মৃত্যুবার্ষিকী

আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:২৮ এএম

তিনি শুধু নায়ক নয়, গায়কও বটে- তার গীত গান এখনো জনপ্রিয়। আর ফ্যাশনের দিক থেকে বলা যায় বাংলাদেশের অন্যতম স্টাইল আইকন। সেই চির সবুজ নায়ক জাফর ইকবালের মৃত্যুবার্ষিকী মঙ্গলবার। ১৯৯২ সালের এ দিনে (৮ জানুয়ারি) ঢাকায় মারা যান তিনি।

জাফর ইকবাল ১৯৫১ সালের ১৯ এপ্রিল সালে ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বড় ভাই আনোয়ার পারভেজ বিখ্যাত সংগীত পরিচালক ও ছোট বোন শাহনাজ রহমতুল্লাহ সংগীতশিল্পী।

মূলত সংগীতশিল্পী হিসেবেই শোবিজে পা রাখেন জাফর ইকবাল। ১৯৬৬ সালে একটি ব্যান্ড দল গড়ে তোলেন এবং তার সিনেমায় প্রথম প্লে-ব্যাক করা গান ছিল ‘পিচ ঢালা পথ’। জাফর ইকবালের কণ্ঠে ‘হয় যদি বদনাম হোক আরও’ গানটি একসময় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায় । তবে তার সবচেয়ে জনপ্রিয় গান ‘সুখে থেকো ও আমার নন্দিনী’।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের আগে জাফর ইকবাল চলচ্চিত্র জগতে পা রাখেন। তার অভিনীত প্রথম ছবির নাম ‘আপন পর’। তার বিপরীতে অভিনয় করেন কবরী। তবে জাফর ইকবালের সঙ্গে জনপ্রিয়তা পান ববিতা। তারা জুটি হয়ে ৩০টির মতো ছবি করেন। তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে ওই সময় বেশ চর্চা হয়।

জাফর ইকবাল ১৫০টির মতো ছবিতে অভিনয় করেন। তার উল্লেখযোগ্য ছবিগুলো হলো ভাই বন্ধু, চোরের বউ, অবদান, সাধারণ মেয়ে, একই অঙ্গে এত রূপ, ফকির মজনু শাহ, দিনের পর দিন, বেদ্বীন, অংশীদার, মেঘবিজলী বাদল, সাত রাজার ধন, আশীর্বাদ, অপমান, এক মুঠো ভাত, নয়নের আলো, গৃহলক্ষ্মী, ওগো বিদেশিনী, প্রেমিক, নবাব, প্রতিরোধ, ফুলের মালা, সিআইডি, মর্যাদা, অবুঝ হৃদয় ও সন্ধি।

জাফর ইকবাল ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত