রোববার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

পর্যটনের তীর্থস্থান

আপডেট : ০৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:২৯ এএম

পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম চীনের মহাপ্রাচীর। চীনা প্রকৃতির আশ্চর্য সুন্দর রূপ একে ঘিরে আছে। প্রত্যেকটি ঋতুতেই বদলে যায় এই প্রকৃতির রং রূপ। এই বিশাল সৌন্দর্য আর প্রকৃতির রূপ দেখতে প্রতিবছরই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে জড়ো হয় লাখ লাখ পর্যটক। এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পর্যটকদের ভিড় থাকে বেশি। শীতে যখন তুষার পড়ে ঢেকে যায় মহাপ্রাচীর আর পাহাড়ের সারি, তখন অন্যরকম এক আবহের সৃষ্টি হয়। সারা বছরই প্রাচীরের ওপর দিয়ে ভীষণ বেগে বাতাস বইতে থাকে। শরৎ আর শীতে তো কথাই নেই। তীব্র হিমেল বাতাস যেন প্রাচীরের ওপর থেকে উড়িয়ে নিয়ে যেতে চায় পর্যটকদের। পর্যটকদের জন্য প্রাচীরের কিছু কিছু অংশের ওপর চড়ার ব্যবস্থাও রয়েছে। চীনের রাজধানী বেইজিংয়ের একদম কাছ ঘেঁষেই গেছে এটি। বেইজিং থেকে যারা মহাপ্রাচীর দেখতে যান, তারা সাধারণত এটির ‘বাদালিং’ অংশে চড়েন। মহাপ্রাচীরের এই অংশটি পাহাড়ের ওপর। ২৬ ফুট উঁচু পাথরের দেয়াল। ১৬ ফুট চওড়া। পাহাড় বেয়ে প্রাচীর পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য রয়েছে কয়েকশ ধাপ সিঁড়ি। তবে সবাই তো আর এত লম্বা সিঁড়ি বেয়ে ওপরে উঠতে পারবে না; তাদের জন্য রয়েছে কেবল কার, নয়তো পুলি দিয়ে ওঠার ব্যবস্থা। বাদালিংয়ে প্রাচীরের ওপরে উঠলে দেখা যায়, চারদিকে পাহাড়ের সারি। তার ওপর দিয়ে এঁকেবেঁকে চলে গেছে প্রাচীর। ঠিক যেন ড্রাগনের লম্বা লেজ। শত শত মানুষ সেই প্রাচীরের ওপর দিয়ে হেঁটে চলেছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত