মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ট্রাম্পকে আরেক ধাক্কা সিনেটের

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:০৯ এএম

সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে তহবিল চেয়ে প্রত্যাখ্যাত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এখনো সে ধাক্কা কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন। এরই মধ্যে আরেকটি ধাক্কা আসলো সিনেট থেকে। এবারও নিজ দল রিপাবলিকান পার্টি আর বিরোধী ডেমোক্রেটিক পার্টি এক জোট তার বিরুদ্ধে।

সিরিয়া এবং আফগানিস্তান থেকে ট্রাম্পের সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত ঠেকিয়ে দিতে সিনেটে বিল আনার বিষয়ে ভোটাভুটি হয়েছে। বৃহস্পতিবার ৬৮-২৩ ভোটে রেজ্যুলেশনটি পাস হয়।

রেজ্যুলেশনে হোয়াইট হাউজকে জানানো হয়, সিরিয়া থেকে মার্কিন বিশেষ বাহিনীর সদস্যদের প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা এবং আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের আগে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে চান জ্যেষ্ঠ রিপাবলিকান নেতৃবৃন্দ।

রেজ্যুলেশনে সিরিয়া এবং আফগানিস্তানে ‘সামরিক ও কূটনৈতিক কৌশল পুনর্বিবেচনা’ এবং দীর্ঘমেয়াদে আল-কায়েদা ও ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দ্য লেভান্ত (আইএসআইএস হিসেবে পরিচিত আইএসআইএল) কে পরাজিত করার ‘শর্ত নির্ধারণ’ করতে ট্রাম্প প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

‘উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সেনা প্রত্যাহার শুরুর আগে’ এসব শর্ত পূরণের বিষয়টি স্পষ্ট করতেও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রতি রেজ্যুলেশনে আহ্বান জানানো হয়।

ট্রাম্পের মিত্র জ্যেষ্ঠ রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম আলজাজিরাকে বলেন, ‘আমি মনে করি, সিরিয়ার বিষয়ে ধীরে এগোচ্ছেন প্রেসিডেন্ট। আফগানিস্তানে আমরা নতুন কোনো কাঠামো যদি পাই, সেই সুযোগ নিতে চাচ্ছেন তিনি, বিশেষ করে সেখানে যদি আমরা শান্তি চুক্তিতে পৌঁছাতে পারি।’

আইএসআইএস ‘পরাজিত হয়েছে’ ঘোষণা দিয়ে গত মাসে সিরিয়া থেকে ২০০০ সেনা সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। অবশ্য পরে দ্রুত সেনা সরিয়ে আনার বিষয়ে পিছু হটেন তিনি। মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, সেনা প্রত্যাহারের নির্দিষ্ট কোনো সময়সীমা নেই।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত