মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

মনোনয়ন প্রত্যাশীদের চাপে নাকাল সিলেট আ. লীগ

আপডেট : ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:২৮ পিএম

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিশ্চিত করতে পারলে জয়লাভ খুব কঠিন হবে না, এমনটিই মনে করছেন সিলেটের বিভিন্ন উপজেলার সম্ভাব্য প্রার্থীরা। যে কারণে বেড়েছে আগ্রহী প্রার্থীর সংখ্যা। ডজন ডজন মনোনয়ন প্রত্যাশীর চাপে এখন জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নাকাল। প্রার্থী ঠিক করার জন্য বিভিন্ন উপজেলায় আয়োজিত বর্ধিত সভায় বিশৃঙ্খলা হচ্ছে। এ নিয়ে সিলেটে একাধিক আওয়ামী লীগ নেতাকে বহিষ্কারও করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও চেয়ার ভাঙচুর হয়। চেয়ারম্যান পদের মনোনয়ন প্রত্যাশী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আপ্তাব হোসেন কালা মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম ও ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম আহমদের লোকজনের মধ্যে এই বিশৃঙ্খলা হয়। এ কারণে সভা প- হয়ে যায়। পরে জেলা নেতারা সিলেটে ফিরে আপ্তাব হোসেন কালা মিয়া ও জাহাঙ্গীর আলমকে বহিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছেন। এরপর শামীম আহমদকে বহিষ্কার করেছে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ। গত বুধবার কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় মনোনয়ন প্রত্যাশী আবদুল মুমিন চৌধুরী ও মোস্তাক আহমদ পলাশের সমর্থকদের মধ্যে তুমুল হট্টগোলের কারণে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভ া শেষ হয়।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, গোলাপগঞ্জ উপজেলায় ইকবাল আহমদ চৌধুরী ও জকিগঞ্জ উপজেলায় লোকমান আহমদ চৌধুরীকে দলীয় একক প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ একটি বড় দল। এখানে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী থাকাটাই স্বাভাবিক।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত