সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

ভাঁজফোন নিয়ে ব্যস্ত হুয়াওয়ে

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৭ পিএম

চীন-যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্যযুদ্ধে সবচেয়ে হুমকির মধ্যে আছে জায়ান্ট টেক হুয়াওয়ে। যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়া তাদের ফাইভ জি নেটওয়ার্কে হুয়াওয়ের পণ্যকে এক্সেস দেবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ জন্য অজুহাত হিসেবে তারা হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র নানাভাবে প্রমাণ করার চেষ্টা করছে যে, হুয়াওয়ের সঙ্গে চীনা গোয়েন্দাদের আঁতাত রয়েছে। তবে, মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন মনে করে, হুয়াওকে ঠেকাতে মার্কিন পরিকল্পনা অনেক দেরি হয়ে গেছে। কারণ, বিশ^বাজারে ইতোমধ্যেই শক্ত অবস্থান গড়ে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। জানা গেছে, তাদের বিরুদ্ধে কে কী ব্যবস্থা নিলো, তা নিয়ে আর ভাবছে না প্রতিষ্ঠানটি। বরং এই মুহূর্তে তারা মনোযোগ দিয়েছে, স্মার্টফোন জগতের নতুন সেনসেশন ভাঁজফোন তৈরিতে। ফেব্রুয়ারিতেই স্পেনের বার্সেলোনায় ওয়ার্ল্ড মোবাইল কংগ্রেস ইভেন্টে সামনে আসবে হুয়াওয়ে’র ৫এ ফোল্ডেবল স্মার্টফোন। টুইটারে ইতোমধ্যেই এই ডিভাইস-এর শুভ সূচনা করার ইঙ্গিত দিয়েছে চীনা কোম্পানিটি। আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি বার্সালোনায় ওয়ার্ল্ড মোবাইল কংগ্রেস ইভেন্টে ফোল্ডেবল স্মার্টফোনটি যাত্রা শুরু করবে।টুইট বার্তায় ফোল্ডেবল স্মার্টফোন কথাটি লেখা না থাকলেও এই ফোনের একটি ছবি প্রকাশিত হয়েছে। সেখানে ভাঁজ করা স্মার্টফোনের মাধ্যমে ‘ভবিষ্যতের সঙ্গে যুক্ত’ হওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে। এটাই কোম্পানির প্রথম ৫এ স্মার্টফোন হতে চলেছে। ফোনের ভেতরে থাকবে কোম্পানির নিজস্ব হাইসিলিকন কিরিন ৯৮০ চিপসেট আর ব্যালং ৫০০০ মডেম।

২০১৭ সালে সর্ব প্রথম হুয়াওয়ের ফোল্ডেবল স্মার্টফোন তৈরির খবর সামনে এসেছিল। একই সময় থেকে ফোল্ডেবেল স্মার্টফোন তৈরির কাজে ব্যস্ত দক্ষিণ কোরিয়ার টেক জায়ান্ট স্যামসাংও। হুয়াওয়ের ফোল্ডেবল স্মার্টফোন বা ভাঁজফোন লঞ্চের ঠিক আগে ২০ ফেব্রুয়ারি এক ইভেন্টে যাত্রা শুরু করবে স্যামসাং-এর ভাঁজফোনও।

হুয়াওয়ের ফোল্ডেবল স্মার্টফোনে থাকবে একটি ৭.২ ইঞ্চি ডিসপ্লে। ২৪ থেকে ৩০ হাজারটি ভাঁজফোন তৈরি করবে হুয়াওয়ে। হুয়াওয়ে এবং স্যামসাং ছাড়াও অন্যান্য কোম্পানির মধ্যে ভাঁজফোন তৈরি করছে এলজি এবং শাওমিও।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত