শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

নিজ মাঠে ভয়ংকর শেখ রাসেল

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৮ এএম

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ২৩ ম্যাচ হয়ে গেছে আগেই। ২৪তম ম্যাচে এসে চলতি আসরে প্রথম ম্যাচ পেল সিলেট জেলা স্টেডিয়াম। আর প্রথম দিনেই মাঠটি দুহাত ভরিয়ে দিল তাদের ‘ঘরের’ দল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রকে। গতকাল দলটি দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে আরেকটি বড় হারের লজ্জায় ডুবিয়েছে এক সময়ের ডাকসাইটে দল মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবকে। রাসেল ম্যাচটি জিতে নিয়েছে ৩-০ গোলের বড় ব্যবধানে। এই জয়ে টানা তিন ম্যাচে পূর্ণ ৩ পয়েন্ট করে পেল রাসেল। যা তাদের নিয়ে এসেছে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় স্থানে। অন্যদিকে প্রথম ম্যাচে টিম বিজেএমসিকে হারানোর পর থেকেই হেরে চলছে মোহামেডান। শেষ তিন ম্যাচ তারা হেরেছে আরামবাগ, ব্রাদার্স ইউনিয়ন এবং শেখ রাসেলের বিপক্ষে। ফলে সেই প্রথম ম্যাচে জয়ের ৩ পয়েন্ট সম্বল করে ১৩ দলের লিগ টেবিলে ১০ নম্বরে মোহামেডান। পেশাদার যুগে ২২ বারের মোকাবিলায় মোহামেডানকে নবমবারের মতো হারাল রাসেল। মোহামেডান জিতেছে ছয়বার। আর ড্র হয়েছে সাত ম্যাচ। ২০১৩ সালে রাসেলকে পঞ্চম আসরে ১-০ গোলে হারানোর পর আর হারাতে পারেনি মোহামেডান।

লিগের শুরুর দুটি ম্যাচই শেখ রাসেল খেলেছিল অ্যাওয়ে ভেন্যুতে। প্রথমটি আরামবাগের বিপক্ষে ময়মনসিংহে। যে ম্যাচটি তারা জিতে নেয় ১-০ গোলে। ঢাকায় দ্বিতীয় ম্যাচে ব্রাদার্সকে ৩-২ গোলে হারিয়ে নিজেদের মাঠে আসে রাসেল। হোম ভেন্যু হতাশ করেনি তাদের। ম্যাচটাও তারা খেলেছে প্রাধান্য বিস্তার করে। ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই যার ফল পেয়ে যায় দলটি। ডানপ্রান্ত থেকে লোকাল বয় বিপলু আহমেদের দারুণ ক্রস বুক দিয়ে নামিয়ে আলতো টোকায় জালে জড়িয়ে দেন নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড রাফায়েল ওদোইন। ১৩ মিনিটে মোহামেডান ফিরতে পারত ম্যাচে। গাম্বিয়ান প্লেমেকার ল্যান্ডিং ডারবোর ফ্রিকিক বাঁদিয়ে ঝাঁপিয়ে রুখে দেন রাসেল কিপার আশরাফুল ইসলাম রানা। ৪২ মিনিটে লিড বাড়িয়ে নেয় রাসেল। এবার বামপ্রান্ত থেকে কর্নারে ওদোইনের হেড সাইড বারে লেগে ফিরলে ফিরতি বলে সাইড ভলি করে গোল করেন নাইজেরিয়ান ডিফেন্ডার আলিসন উদোকা। দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণ জারি রেখেছিল রাসেল। ৬০ মিনিটে উদোকার একটি কর্নার কোনোমতে ঠেকিয়ে দেন মোহামেডান কিপার। ৮৬ মিনিটে দারুণ বিল্ডআপে গোল করেন রাসেলের উজবেক ফরোয়ার্ড আলিশের আজিজভ। গোল কিক থেকে বল পেয়ে রাফায়েলের সঙ্গে ওয়ান টাচ বল নিয়ে বক্সের ঠিক বাইরে মোহামেডানের দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে কিপারের বামপাশ দিয়ে নিখুঁত প্লেসিংয়ে গোল করে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন আজিজভ।

এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে শেষ হলো লিগের চতুর্থ রাউন্ড। এই রাউন্ড শেষে যথারীতি শীর্ষে রয়েছে চতুর্থ রাউন্ডে বিরতিতে থাকা বসুন্ধরা কিংস। তাদের সংগ্রহ ৯ পয়েন্ট। সমান পয়েন্ট রয়েছে আরও চার দল আরামবাগ ক্রীড়া সংঘ, শেখ রাসেল, সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব এবং আবাহনী লিমিটেডের। ষষ্ঠ স্থানে মুক্তিযোদ্ধার সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। আর চট্টগ্রাম আবাহনী ৫ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তমে। গতবারের রানার্সআপ শেখ জামালের সংগ্রহ ৪ পয়েন্ট। ব্রাদার্স এবং মোহামেডানের ৩ করে। রহমতগঞ্জের ২ আর টিম বিজেএমসির ১। এখনও পয়েন্টের দেখা পায়নি নবাগত নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব।

দুদিন বিরতি দিয়ে ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে পঞ্চম রাউন্ড। প্রথম দিনে আবাহনী খেলবে টিম বিজেএমসির বিপক্ষে। আর জামালের প্রতিপক্ষ আরামবাগ।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত