সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অচেনা মুখ

আপডেট : ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:৪১ এএম

খুব অল্প দিনেই আইটিটিএফ এক্সপার্ট আনশুল গার্গের গুডবুকে উঠে গেছে তার নাম। বয়স মাত্র ১৪ বছর হলেও এর মধ্যেই দ্যুতি ছড়িয়েছে প্যাডল হাতে। মাত্র ছয় বছর বয়সে মায়ের হাত ধরে নড়াইল টিটি ক্লাবে ভর্তি হয় সাদিয়া রহমান মৌ। ২০১২ সালে চট্টগ্রামে আয়োজিত জাতীয় টিটি চ্যাম্পিয়নশিপে প্রথম খেলতে এসেই নজর কাড়ে ফেডারেশনের বর্ষীয়ান সদস্য সামসুল আলম আনুর। এরপর থেকে আনুর অধীনেই নিজেকে তৈরি করছে। ২০১৭ সালে সর্বশেষ জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপের মহিলা দ্বৈত ও দলগত ইভেন্টে স্বর্ণপদক জয়। সে বছর জুনিয়র জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে একক ও দ্বৈত ইভেন্টে স্বর্ণজয়ী মৌ যুব গেমসের তিনটি ইভেন্টে সেরা হয়। এরই মধ্যে বিদেশের মাটিতে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা নড়াইল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী মৌ নিজেকে প্রস্তুত করছে দেশসেরা প্যাডলার হওয়ার লক্ষ্যে। টিটি সম্রাজ্ঞী জোবেরা রহমান লিনুর ১৬ বারের জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণ জয়ের বিশ্বরেকর্ড ভাঙারও স্বপ্ন তার। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এ পর্যন্ত পাওয়া সাফল্যগুলোকেও ছাড়িয়ে যেতে চায়। যমজ বোন সুমাইয়া রহমান মিমও টিটি খেলে। তবে বোনকে পেছনে ফেলে মৌ প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে চলছে। যে কারণে ভারতীয় কোচ আনশুল গার্গ তাকে নিয়ে দেখছেন স্বপ্ন, ‘সঠিক পরিচর্যা পেলে মৌ অনেক ভালো করবে।’ মৌর সেই পরিচর্যাটুকু নিশ্চিত হলেই স্বপ্ন হবে বাস্তব।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত