মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

হ্যান্ডবল

আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০২:৫৫ এএম

হ্যান্ডবল খেলাটির জন্ম জার্মানিতে দ্বাদশ-ত্রয়োদশ শতাব্দীতে। জার্মান গীতি কবিতায় ক্যাচবল নামে একটি খেলার উল্লেখ আছে। ধারণা করা হয়, সেখান থেকেই উৎপত্তি আজকের হ্যান্ডবলের। ১৯৮৩ সালে হ্যান্ডবল চর্চা শুরু হয় বাংলাদেশে। ৪০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ২০ মিটার প্রস্থের মাঠে হয় এই খেলা। মাঠের দাগগুলো ৫ সেন্টিমিটার চওড়া এবং গোলপোস্টের ভেতরের লাইন ৮ সেন্টিমিটার চওড়া। গোলপোস্টের ক্রসবারের উচ্চতা ২ মিটার এবং দৈর্ঘ্য হয় ৩ মিটার। ১৬ বছর বা তার ঊর্ধ্বে ছেলেমেয়েদের খেলার স্থিতিকাল ৭০ মিনিট। এর মধ্যে একেক অর্ধ ৩০ মিনিট। দুই অর্ধের মাঝে ১০ মিনিটের বিরতি। দুইজন রেফারি, একজন টাইম কিপার এবং একজন স্কোরার দ্বারা এই খেলা পরিচালিত হয়। প্রতি দলে থাকে ১২ জন। এর মধ্যে মাঠে একজন গোলকিপারসহ মোট আটজন খেলোয়াড় একসঙ্গে খেলে। একজন ফিল্ড প্লেয়ার কোনো অবস্থাতেই বল তিন সেকেন্ডের বেশি ধরে রাখতে পারে না। বল ধরে তিন স্টেপের বেশি নেওয়া যায় না। ম্যাচ শুরু ও গোল হওয়ার পর খেলা শুরুকে থ্রো-অফ বলে। খেলাটির কলাকৌশল খুব সহজ। খেলাটির চারটি কলাকৌশল হচ্ছে বলা ধরা, বল পাস দেওয়া, গোলে বল মারা এবং গোল করতে বাধা দেওয়া।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত