রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আড্ডায় মুখর লেখক মঞ্চ

আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫:০১ এএম

এবারের বইমেলার নতুন সংযোজন ‘লেখক বলছি’ মঞ্চ। মেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের উত্তর-পূর্ব কোনায় রয়েছে এই মঞ্চটি। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামার মুখে। আর তখন লেখক-পাঠকের আড্ডায় প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে ‘লেখক বলছি’ মঞ্চ।

লেখকের সঙ্গে পাঠকের যোগাযোগ বাড়াতে প্রথমবারের মতো সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এই মঞ্চের ব্যবস্থা। প্রতিদিন পাঁচজন করে লেখক পাঠকের সামনে আসবেন নিজের নতুন বই নিয়ে। লেখকদের সামনে বসে তার বই সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হচ্ছেন পাঠকরা। বেত-বাঁশ দিয়ে তৈরি সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশের এই মঞ্চ বেশ আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। মঞ্চের সামনে সারি সারি চেয়ার। পাঠকরা ভিড় করে সেখানে বসা। বসার জায়গা না পেয়ে অনেকে দাঁড়িয়েও অংশ নিচ্ছেন আলোচনায়। প্রথমবারের মতো এই আয়োজন বেশ সাড়া জাগিয়েছে বইমেলায়। এ প্রসঙ্গে তাম্রলিপি প্রকাশনীর প্রকাশক একেএম তারিকুল ইসলাম বলেন, লেখকদের সঙ্গে পাঠকদের যোগাযোগ বাড়াতে এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। লেখকের সঙ্গে পাঠকের আলোচনার এই ব্যবস্থা তরুণ পাঠকদের বেশ আকর্ষণ করবে বলে আমার ধারণা। এ মঞ্চে অংশগ্রহণের জন্য রয়েছে কিছু নীতিমালা। শুধু ১ মার্চ ২০১৮ থেকে অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯ পর্যন্ত প্রকাশিত বইয়ের লেখকরাই এ মঞ্চে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। নির্বাচিত লেখকের বইসংক্রান্ত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তরের জন্য নির্ধারিত সময় ২০ মিনিট।

কথাসাহিত্যিক হৃদয় ইসমাইল বলেন, ‘বইমেলার অন্যতম উদ্দেশ্য পাঠকের কাছে বই পৌঁছে দেওয়া। লেখক নিজেই এ মঞ্চে তার প্রকাশিত বই নিয়ে কথা বলছেন। এ রকম আয়োজন প্রশংসনীয়।’

পাঠকদের মধ্যেও দেখা যায়  মঞ্চ নিয়ে উচ্ছ্বাস। আলোচনায় উপস্থিত থাকা পাঠক পুনম বলেন, আমি প্রায় প্রতিদিনই বইমেলায় আসি। এই আয়োজনের মাধ্যমে লেখকদের মুখেই তাদের বই নিয়ে আলোচনা শোনার সুযোগ পাচ্ছি। আমি অপেক্ষা করছি কবে আমার প্রিয় লেখকরাও আমন্ত্রণ পাবেন এবং তাদের আলোচনা সরাসরি শোনার সুযোগ পাব।

পঞ্চম দিনে আসা নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য অনুযায়ী, মেলার পঞ্চম দিন গতকাল ১৫২টি নতুন বই এসেছে। এর মধ্যে গল্পগ্রন্থ ২০টি, উপন্যাস ৩৩, প্রবন্ধ ১৫, কবিতা ৪০, গবেষণা ২, ছড়া ২, শিশুসাহিত্য ২, জীবনী ৫, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক ৭, নাটক ২, বিজ্ঞানবিষয়ক ৩, ভ্রমণ ৩, রাজনীতি ১, ধর্মীয় ১, অনুবাদ ১, সায়েন্স ফিকশন ১ এবং অন্যান্য ১৪টি বই রয়েছে। এদিন প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে প্রকাশনী সংস্থা গ্রন্থকুটির এনেছে  মোজাফফর হোসেনের প্রবন্ধগ্রন্থ ‘বাংলা সাহিত্যের নানাদিক’, অনন্যা এনেছে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থ ‘নিতুর ডায়েরি ১৯৭১’, শ্রাবণ প্রকাশনী এনেছে আশিস গোস্বামীর নাটকবিষয়ক গ্রন্থ ‘শব্দাবলী স্টুডিও থিয়েটার কথা’, ঐতিহ্য এনেছে আলতাফ পারভেজের প্রবন্ধগ্রন্থ ‘কাশ্মীর ও আজাদির লড়াই’, তৃণলতা এনেছে আহসান হাবীবের সায়েন্স ফিকশন ‘বিজ্ঞান কল্প গল্প’, নবযুগ প্রকাশনী এনেছে সন্জীদা খাতুনের প্রবন্ধগ্রন্থ ‘অগ্রজজনের সৃষ্টিবীসা’, কবি প্রকাশনী এনেছে রেজাউদ্দিন স্টালিনের কবিতাগ্রন্থ ‘সরলার সংক্ষিপ্ত জীবনী’, তৃণলতা প্রকাশনী এনেছে আলী ইমামের গল্পগ্রন্থ ‘গল্পগুলো কাছের দেশের দূরের দেশের’, তৃণলতা এনেছে অনুপম হায়াৎ-এর প্রবন্ধগ্রন্থ ‘গণমাধ্যমে নজরুল’, তরফদার প্রকাশনী এনেছে হায়দার আকবর খান রনোর ‘মুক্তিযুদ্ধে বামপন্থীরা’, কথা প্রকাশ এনেছে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর প্রবন্ধগ্রন্থ ‘হস্তান্তর নয় রূপান্তর চাই’, ঐতিহ্য এনেছে আফজাল হোসেনের উপন্যাস ‘একাকী আকাশ ওখানে’।

আজ যা থাকবে : ষষ্ঠ দিন আজ বুধবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলবে। বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় : জন্মশতবর্ষ শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। সন্ধ্যায় রয়েছে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, কবিতা-আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত