বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করবই: ট্রাম্প

আপডেট : ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৩৯ পিএম

কংগ্রেসে স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন নামে বার্ষিক ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আবারও সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের জোর দাবি জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে অবৈধ অভিবাসীদের প্রবেশ ঠেকাতে ‘সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করবই’ বলে গত মঙ্গলবার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন ট্রাম্প।

এ সময় তিনি সব দ্বন্দ্ব ভুলে আমেরিকানদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘একসঙ্গে বসে আমরা দশকের পর দশক ধরে চলা রাজনৈতিক মতানৈক্য দূর করতে পারি। আগের বিভক্তি দূর করতে পারি। অতীতের ক্ষত মুছে ফেলতে পারি। নতুন জোট করতে পারি। নতুন সমাধান খুঁজতে পারি।’ যদিও ভাষণে উপস্থিত ডেমোক্র্যাট শিবির ট্রাম্পের এই আহ্বানে মৌনতা অবলম্বন করে।

গত মঙ্গলবার ভাষণের শুরুতেই ট্রাম্প বলেন, ‘এই ভাষণ রিপাবলিকান বা ডেমোক্রেটিক পার্টির জন্য নয়। এই ভাষণ মার্কিন নাগরিকদের উদ্দেশে। কেননা, যুক্তরাষ্ট্র দুই দলের নয়, বরং এক জাতি হিসেবে পরিচালিত হবে। কোনো দলের জন্য জেতাটা বিজয় নয়, দেশের জন্যে বিজয় হচ্ছে প্রকৃত বিজয়।’

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতি প্রশ্নে ট্রাম্প সিরিয়া এবং আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারের বিষয়টি সামনে আনেন। প্রয়োজনে বহির্দেশে মার্কিন সেনাসদস্যদের আরও দীর্ঘ সময় ধরে রাখা হবে বলেও তিনি জানান। বক্তব্যে উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের সঙ্গে অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকের ব্যাপারে আলোকপাত করেন।

ভাষণে জাতির উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘বিংশ শতাব্দীর আমেরিকা মানুষের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছে। বিজ্ঞানের প্রসার ঘটিয়েছে এবং মধ্যবিত্ত শ্রেণির জীবনমান উন্নত করেছে। গোটা দুনিয়ার তা জানা আছে। এখন আমাদের সাহসের সঙ্গে শক্তভাবে সমৃদ্ধ আমেরিকা গঠনের নতুন অধ্যায় রচনায় মনোনিবেশ করতে হবে। একবিংশ শতাব্দীর জন্য জীবনমানের এক নতুন মানদণ্ড তৈরি করতে হবে।’

অভিবাসন পদ্ধতির সংস্কার যুক্তরাষ্ট্রের নৈতিক দায়িত্ব বলে তিনি বলেন, ‘এই দেয়ালের মাধ্যমে আমেরিকানদের জীবন ও চাকরির নিশ্চয়তা নিশ্চিত হবে। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মীবাহিনী ও রাজনীতিকদের মধ্যে বিভক্তির অন্যতম প্রধান একটি কারণ হচ্ছে অবৈধ অভিবাসীরা। মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ করে সে সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। আমি এটা নির্মাণ করাব।’ ট্রাম্পের এমন বক্তব্যের পর রিপাবলিকান সমর্থকরা উল্লাস প্রকাশ করলেও ডেমোক্র্যাটরা চুপ ছিলেন।

ভাষণে ছয়টি বিষয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন ট্রাম্প। এর মধ্যে প্রথমেই নিজের মেয়াদে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিকে সফল বলে উল্লেখ করেন তিনি। গুরুত্বারোপ করেন সীমান্ত দেয়াল নির্মাণের ওপর। অবকাঠামো উন্নয়নে ১ দশমিক ৫ ট্রিলিয়ন বা ১ লাখ ৫০ কোটি ডলার খরচের কথাও উল্লেখ করেন তিনি। স্বাস্থ্যসেবা সংস্কার এবং ২০৩০ সাল নাগাদ এইডস দূরীকরণের উদ্যোগ নেওয়ার কথাও বলেন ট্রাম্প।

স্টেট অব দ্য ইউনিয়নে বক্তব্যের সময় কংগ্রেসের নারী ডেমোক্র্যাটদের সাদা পোশাক পরিহিত দেখা যায়। হাউস ডেমোক্র্যাট ভালো ডেমিংস এক টুইট বার্তায় এ বিষয়ে বলেন, ‘আমাদের পূর্বসূরিরাও যে অধিকারের প্রশ্নে লড়াই করেছিলেন, তা ট্রাম্পকে মনে করিয়ে দিতেই আমরা আজ রাতে সাদা পোশাক পরে কংগ্রেসে যাব।’ সূত্র: এএফপি

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত