মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

তিন বলেই আসলে সর্বনাশ

আপডেট : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:১৬ এএম

তিন বলে তিন উইকেট। ওখানেই সর্বনাশ। মেরুদণ্ড ভেঙে গেল। তারপরও রংপুর রাইডার্স অধিনায়ক মাশরাফী মোর্ত্তজা আশাবাদী ছিলেন। কিন্তু মাঝে আবার পতনের কারণে হলো না। পরিণতি, গতকাল মিরপুরে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা ডায়নামাইটসের কাছে হেরে বিপিএল থেকে বিদায় নিল গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর। আগামীকালের ফাইনালে ঢাকা লড়বে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে। আর রংপুরের বিপক্ষে ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতা ঢাকার পেসার রুবেল হোসেন ভাবছেন, লড়াইটা দুর্দান্ত হবে।

আগে ব্যাট করে ৩.৪ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪২ রান হয়ে গিয়েছিল রংপুরের। বিশাল কিছুর আশা ছিল মাশরাফীর, ‘আমার কাছে মনে হয় যে প্রথম তিন বা সাড়ে তিন ওভার পর্যন্ত আমরা যেখানে ছিলাম তাতে অনেক বড় রান হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নাদীফ আউট হওয়ার পরের বলে গেইল, তার পরের বলে রুশোÑ ইনফর্ম ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে আমরা ওখানে অনেক ব্যাকফুটে চলে গেছি আসলে।’

চতুর্থ ওভারে নাদীফ চৌধুরী টানা তিন ছক্কা মারেন স্পিনার শুভাগত হোমকে। তার আগের ওভারে আন্দ্রে রাসেলকে দুটি ছক্কা ও একটি চার মেরেছেন ক্রিস গেইল। সব ঠিক ছিল। কিন্তু চতুর্থ ওভারের শেষ বলে শুভাগত বিপজজ্জনক হয়ে ওঠা নাদীফকে তুলে নেন। পরের ওভারের প্রথম দুই বলে বিরাট দুই উইকেট রুবেলের।

রুবেলের হ্যাটট্রিক না হলেও ওই টিম হ্যাটট্রিকে ভাগ্য বদলেছে ঢাকার। আর ম্যাচের শেষে ২৩ রানে ৪ উইকেট নেওয়া রুবেল তুলনা করে সেরা উইকেটের প্রসঙ্গে বলছিলেন, ‘গেইলের উইকেটটা অবশ্যই। তার আগের ওভারে দুইটা ছয় মেরেছে। ওরটা গুরুত্বপূর্ণ।’

আবার মাশরাফীর প্রসঙ্গে ফিরলে দেখবেন তিনি বলবেন রবি বোপারার (৪৯) সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে তাদের ৬৪ রানের প্রতিরোধ জুটির কথা। ৪২ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর ওই গল্প। মাশরাফী বলছিলেন, ‘তারপরও পার্টনারশিপ করে আমরা ১২ ওভারে ১০৪ রানের মতো ছিলাম। তখন আমরা খেলা ধরেছিলাম। শেষ ৪৮ বলে আমরা যদি ৭০ করতে পারতাম তাহলে এই খেলাটা অন্য রকম হতে পারত। আমরা বোলিং ভালোই করছিলাম। বিশেষ করে এই উইকেটে। তারপরও দুইবার খেলা ধরেও আমরা রাখতে পারিনি কাছে। খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট পড়েছে। তবে শুরুতে যেমন মনে হচ্ছিল তাতে রানটা বিশাল হওয়া উচিত ছিল। বিশাল বলতে ধরুন ১৮০/১৯০ হওয়া উচিত ছিল।’

১০৬ থেকে ১১০-এ যেতে তিন উইকেট হারিয়েছে রংপুর। ১৪২ রানে অল আউট নির্ধারিত ২০ ওভারের আগে। এটা এখানে লড়ার মতো না তা স্বীকার করেই নিলেন রংপুর অধিনায়ক। তারপরও দুষছেন না কাউকে। বিশেষ করে ক্যারিবিয়ান ঝড় ক্রিস গেইলের কাছে প্রত্যাশার প্রায় কিছু পূরণ না হলেও। মাশরাফীর ভাষায়, ‘শুধু একজনকে নিয়ে তো আমরা খেলতে নামিনি। অবশ্যই দায়িত্ব ছিল সবারই। তার কাছ থেকে অবশ্যই বড় ইনিংস বা কুইক ইনিংস আশা করে সবাই। কিন্তু দায়িত্ব তো সবারই থাকে। আমার মনে হয় এটা দুর্ভাগ্যজনক। ও সব রকমের চেষ্টাই করেছে। প্র্যাকটিস করেছে। মানসিকভাবে চেষ্টা করেছে। খুব দুর্ভাগ্যের ব্যাপার যে নিজের সেরাটা দিতে পারেনি।’

গত আসরে শেষ চারেই ২টি সেঞ্চুরি করেছিলেন গেইল। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন। এবার ১২ ম্যাচে ১ ফিফটিতে ২০৩ তার নামের সঙ্গে যায় না। তবে সব মিলে ব্যাটিংয়ে চার বিদেশির ওপর নির্ভর করে এবং অন্তত একজন অলরাউন্ডারের অভাব নিয়েও আসরে যা হলো তাতে অতৃপ্ত নন ছয় বিপিএলের চারটির শিরোপা জেতা মাশরাফী, ‘আমাদের উত্থান-পতন ছিল। তারপরও গ্রুপে শীর্ষে থাকা এবং দুইটা সেমিফাইনাল ম্যাচ খেলা রেজাল্ট হিসেবে খারাপ না।’

রংপুরের চার বিদেশির তিনজনের শিকারি রুবেল। দুর্দান্ত এক ম্যাচ খেলেছেন দলের প্রয়োজনের সময়। এই বিপিএলের সেরা পারফরম্যান্স যেখানে। ফাইনালে চোখ রেখে বলছিলেন, ‘কুমিল্লাও শক্তিশালী দল। ওদের বড় বড় ক্রিকেটার আছে। আমার মনে হয় ওই ম্যাচে খুব ভালো একটা লড়াই হবে।’ শনিবার রওনা দিতে হবে নিউজিল্যান্ডে। কঠিন সিরিজ সেখানে। ‘আমি এখানে খুব ভালো একটা ছন্দে আছি। নিউজিল্যান্ডে সুযোগ পেলে ভালো করার চেষ্টা করব। আবহাওয়ার সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে’Ñ ১৪ ম্যাচে এবারের আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২১ উইকেট শিকার করে দারুণ উৎফুল্ল রুবেল শেষ করেন চমৎকার আগামীর আশায়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত