রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

রূপচর্চার যেসব প্রাচীন কৌশল আজও আছে

আপডেট : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৯:১১ পিএম

প্রাগৈতিহাসিক কালের এক স্নিগ্ধ সকাল। বইছে দখিনা বাতাস। খোলা জানালার পাশে এক যুবতী। এলোমেলো চুলে তিনি রূপচর্চা করে চলেছেন। এই দৃশ্যপট আজারবাইজানের কিংবদন্তি কবি নিজামি গাঞ্জাভির একটি লেখার অংশ। রূপচর্চার প্রসঙ্গ থাকায় এখানে এটি টেনে আনা।

এত বছর আগে আধুনিক পৃথিবীর এত উপাদান নিশ্চয়ই ছিল না রূপচর্চার জন্য। অথচ তখনো মানুষকে চেহারার যত্ন নিতে হয়েছে। কিন্তু কীভাবে?

প্রাচীনকালে ডিম দিয়ে রূপচর্চার কৌশল চালু হয় চীনে। তৎকালীন সুন্দরী সম্রাজ্ঞী ঝাং লিহুয়া খ্রিষ্টপূর্ব ৬০০ অব্দে তিনি ডিম ব্যবহার করে মুখের যত্ন নিতেন। আধুনিক সময়েও এভাবে রূপচর্চা করা হয়। ডিমের সাদা অংশ স্কিনকে সতেজ রাখে।

আদিকালে মানুষের হাত দেখে বয়স অনুমান করা হতো। সেই সময় মেয়েরা হাত সুন্দর রাখতে বাদামের তেল এবং গোলাপজল ব্যবহার করতেন। আজও এটি কার্যকর।

প্রাচীনকালের সুন্দরীদের কথা বলতে গেলে সবার আগে আসে প্রাচীন মিসরের রানি ক্লিওপেট্রার নাম। সম্মোহনী সৌন্দর্যের অধিকারী এই নারী নিয়মিত দুধ, মধু এবং অলিভ ওয়েল দিয়ে গোসল করতেন। রূপচর্চায় এই পদ্ধতিটিও এখনো টিকে আছে।

পৃথিবীতে পুষ্টিকর ফলগুলোর মধ্যে অ্যাভোকাডো একটি। বাংলাদেশে অ্যাভোকাডোর গাছ আছে মাত্র ৮-১০টি। এর মধ্যে দুটি আছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টারে। মুখের আভা ঠিক রাখতে প্রাচীনকালে এই ফল ব্যবহার করা হতো। এর নির্যাস স্কিনের পিএইচ লেভেল ঠিক রাখে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত