বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

‘২০১৯ বিশ্বকাপে অঘটন ঘটাবে বাংলাদেশ’

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:২১ এএম

তিন দিনের বাংলাদেশ সফরে আছেন আইসিসি প্রেসিডেন্ট শশাঙ্ক মনোহর। সফরের দ্বিতীয় দিন গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকার লা মেরিডিয়ান হোটেলে তাকে সংবর্ধনা জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এতে বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন ছিল। তাতে পূর্বাচলে হতে যাওয়া শেখ হাসিনা স্টেডিয়ামের মডেল দেখানো হয় আইসিসিপ্রধানকে। সবশেষে প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লার গান দিয়ে জমকালো অনুষ্ঠানের শেষ হয়। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের সাবেক দুই অধিনায়ক আকরাম খান ও হাবিবুল বাশার। মূলত বিসিবিপ্রধানের আমন্ত্রণে বিপিএল ফাইনাল দেখার জন্যই ঢাকায় এসেছেন শশাঙ্ক মনোহর।

সংবাদ সম্মেলন দিয়ে শুরু হয় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান। সেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে নিজের মতামত জানান দ্বিতীয় দফায় আইসিসি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করা শশাঙ্ক মনোহর, ‘নাজমুল হাসান পাপনের নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্রিকেট ভালো করছে। সবচেয়ে বড় কথা হলো দলটির উন্নতি। সবাই জানে এই বাংলাদেশ এখন ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডকে হারাতে পারে। নিকটঅতীতে দলটি খুবই ভালো পারফর্ম করেছে। ধারাবাহিকতাটাই যা একটু সমস্যা। তবে বাংলাদেশের বিশ্বের সেরা দল হওয়ার সামর্থ্য আছে। এছাড়া আমার তো মনে হয় সামনে ইংল্যান্ডে যে ২০১৯ বিশ্বকাপ সেখানে বাংলাদেশ বড় রকমের অঘটন ঘটিয়ে দিতে পারে।’

অনেকদিন ধরেই অলিম্পিকে ক্রিকেটের অন্তর্ভুক্তির ব্যাপারে রব উঠছে। সময়ের দাবি মেনে আইসিসি চেয়ারম্যানও বিষয়টি নিয়ে ভাবছেন, ‘ক্রিকেটকে অলিম্পিকে নিতে আমরাও চাচ্ছি। কিন্তু কিছু বাধা আছে। সবচেয়ে বড় বাধাটি হলো অলিম্পিকের সময়। এই আসর মাত্র ১৫ দিনে শেষ হয়। ক্রিকেটকে কীভাবে ১৫ দিনে শেষ করবেন? এছাড়া ক্রিকেটের জন্য আলাদা স্টেডিয়ামের প্রয়োজন। অলিম্পিক যে দেশগুলোতে হয় সেখানে আলাদা ক্রিকেট স্টেডিয়াম থাকে না। আবার একটা ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে হলে অন্তত চারটি ক্রিকেট স্টেডিয়াম চাই। এসব দিকও চিন্তার বিষয়।’

বর্তমানে টি-টোয়েন্টিই ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফরম্যাট। সম্প্রতি আরও ছোট হয়ে টি-টেন এ নেমেছে খেলাটি। তবে এই ছোট ফরম্যাটগুলোই যে ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ তাও জানালেন শশাঙ্ক মনোহর, ‘ব্রডকাস্টারদের টিআরপির দিকে যদি তাকান, তবে দেখবেন টি-টোয়েন্টিই সবচেয়ে বেশি টিআরপি এনে দেয়। এর কারণ মানুষ এখন খুবই ব্যস্ত। তারা পাঁচ দিন বসে একটি খেলা দেখতে চায় না। টি-টোয়েন্টি মাত্র সাড়ে তিন ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে যায়। তাই এই ফরম্যাটটি দিন-দিন জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠছে।’

তাই বলে টেস্টকে কোনোভাবেই খাটো করছেন না আইসিসিপ্রধান। খেলাটির আসল ফরম্যাটও যেন জনপ্রিয়তা ফিরে পায় সে ব্যাপারে আইসিসি পরিকল্পনা করছে বলে জানান তিনি। আর টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপই হলো সেই পরিকল্পনার মূল, ‘সত্যি কথা বলতে টেস্ট ক্রিকেট যেন মরেই যাচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা চিন্তিত। তাই বোর্ড ডিরেক্টররা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ব্যাপারে একমত হয়েছি। এতে এই ফরম্যাটের প্রতি মানুষের আকর্ষণ ফিরে আসবে।’

এর আগে গতকাল সকালে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন শশাঙ্ক মনোহর। শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন এবং স্মৃতিসৌধের পরিদর্শন বইতে সই করেন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত