রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

মোদি-মোমেন বৈঠক

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহায়তার আশ্বাস

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:০৩ এএম

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে সহায়তা করার আশ^াস দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল বৃহস্পতিবার নয়া দিল্লিতে মোদির সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সাক্ষাতে এই নিয়ে আলোচনায় হয় বলে বাংলাদেশ হাইকমিশন জানিয়েছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম বিদেশ সফরে বুধবার রাতে নয়া দিল্লি পৌঁছান মোমেন। তিন দিনের সফরের প্রথম দিনেই ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন তিনি। আজ দুই দেশের যৌথ পরামর্শক কমিশনের সভায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে সাক্ষাৎ হবে মোমেনের। ওই বৈঠকের পর দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা নিয়ে বেশ কয়েকটি সমঝোতা

স্মারক সই হতে পারে। হাইকমিশন জানিয়েছে, নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাতে রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক ত্রাণ সহায়তা পাঠানোয় ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রোহিঙ্গারা যাতে দ্রুত সময়ে তাদের স্বভূমিতে ফিরে যেতে পারে, সেজন্য ভারত সরকারের সহায়তা চান তিনি। মোদি এ বিষয়ে বাংলাদেশকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন বলে হাইকমিশনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ ও ভারতের অংশীদারিত্ব বাড়ছে বলে উল্লেখ করেছেন মোদি। বাংলাদেশের সমৃদ্ধি ও উন্নয়নে ভারতের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ককে প্রতিবেশী দেশগুলোর জন্য একটি ‘মডেল’ হিসেবে দেখেন বলে জানান। নরেন্দ্র মোদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছাবার্তা পৌঁছে দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ ছাড়া ৩০ ডিসেম্বরের ভোটের পর প্রথম বিদেশি নেতা হিসেবে অভিনন্দন জানানোয় মোদির প্রতি শেখ হাসিনার প্রশংসাবাণীও পৌঁছে তিবা
এ ছাড়া সফরে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং এবং রাজ্যসভায় বিরোধী দলের উপপ্রধান আনন্দ শর্মার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। মনমোহনকে শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছে দেন মোমেন। মনমোহনও টানা তৃতীয় দফায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিস্তার পানি বণ্টনসহ দুই দেশের অমীমাংসিত বিভিন্ন বিষয়ের সুরাহা হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন মনমোহন। বৈঠকে মনমোহন বলেন, ‘রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশের পক্ষে ভারতের সমর্থন রয়েছে। দুই দেশের মধ্যে তিস্তাসহ সব অমীমাংসিত ইস্যু দ্রুত সমাধান হবে বলে আশা করি।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত