রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে ঢাকা-কুমিল্লা

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:০৫ এএম

ফাইনাল সবসময় খুব কাছাকাছি শক্তির দুই দলের লড়াই। এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দিকে তাকালে দেখবেন এই আপ্তবাক্য কতটা সত্য। আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা ৭টায় বিশ্বের অন্যতম সেরা ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ বিপিএলের ফাইনাল। শিরোপা লড়াইয়ে মুখোমুখি ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। শক্তিতে কেউ কারও চেয়ে পিছিয়ে নয় মোটেও। তুমুল উত্তেজনা ছড়ানো লড়াইয়ে ষষ্ঠ

বিপিএল এখন শেষ হওয়ার অপেক্ষায়। বিশ্বকাপ ফুটবল খেয়াল করলে দেখবেন সারা দুনিয়ার সব দেশ দীর্ঘদিন ধরে ওই শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে ঢাকা-কুমিল্লা চূড়ান্ত লড়াইয়ের মঞ্চের অপেক্ষায় থাকে। নির্দিষ্টসংখ্যক দল শেষে শিরোপার জন্য লড়ে। সবকিছুর পর ফাইনালে মুখোমুখি হওয়া দুই দলের শক্তির পার্থক্য থাকে খুব কম। কিন্তু শিরোপা জিতে একটি দল যখন প্রবল গর্বে উৎসবে মাতে তখন অন্য দলটির কী হয়? চোখের জলে ভাসে তারা। দুনিয়ার দ্বিতীয় সেরা দল হওয়ার মধ্যেও কোনো তৃপ্তি মেলে না।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের পর আকর্ষণের দিক থেকে বৈশ্বিক ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে বিপিএল দ্বিতীয় স্থানে। কোটি কোটি টাকার ছড়াছড়ি। এবারের আসরে তো স্টিভ স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার, এবি ডি ভিলিয়ার্স, অ্যালেক্স হেলসদের উপস্থিতি বাড়তি আগ্রহ এনেছিল। ব্রডকাস্টে স্পাইডার ক্যাম কিংবা এলইডি উইকেট আন্তর্জাতিক মানের সর্বোচ্চ স্থানে বিপিএলকে পৌঁছে দেওয়ার তাড়না মিটিয়েছে। এখানেও দ্বিতীয় সেরা হয়ে তৃপ্তি পাওয়ার কিছু নেই।

খেলাটা শেষে ক্রিকেটারদের। মাঠের লড়াইয়ের। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ জিতে শেষ চারে এসেছিল ঢাকা। অথচ শুরু থেকে তারা ছিল ফেভারিট। এরপর দুর্ধর্ষ হয়ে উঠে চিটাগং ভাইকিংসকে এলিমিনেটর ম্যাচ এবং গতবারের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সকে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে হারিয়ে ফাইনালে উঠে স্বস্তির নিঃশ্বাস নেন ঢাকা অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ‘অবশেষে আমরা ফাইনালে। আমি চাই সবাই ম্যাচটা উপভোগ করুক।’ সাকিব বলেছেন, ‘এত লম্বা একটা টুর্নামেন্টের পুরোটা সময় ফিট থাকা সহজ কথা না। কিন্তু সবাই তো ফাইনাল খেলতে চায়।’

ফাইনাল খেলতে চাওয়া মানে শিরোপা জয়ের জন্য ঝাঁপানো। দ্বিতীয় কোনো লক্ষ্য নেই। দ্বিতীয় সুযোগও নেই। তবে লড়াইটা প্রায় কাছাকাছি শক্তির দুই দলের বলে স্নায়ুর ওপর চাপ সামলাতে পারা দলই শেষ হাসিটা হাসবে। কুমিল্লার অধিনায়ক ইমরুল কায়েস গতকাল বলছিলেন, ‘স্নায়ু ধরে রাখা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যে যত বেশি মাঠে ঠাণ্ডা থাকবে এবং যে যত পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পারবে সে সাফল্য পাবে। বেশি উত্তেজনা থাকলে আসলে সাফল্যের সুযোগ কম থাকে।’ তাদের কোচ সালাউদ্দিন জোর দিলেন অন্যদিকে, ‘পুরো টুর্নামেন্টে ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স খুব নজর কাড়েনি। কিন্তু দলীয় সমন্বয় খুব ভালো ছিল এবং সঠিক জায়গায় সঠিক খেলোয়াড় আছে। এটা খুব বেশি জরুরি।’

বিদেশিদের ছাপিয়ে দুই দলে দুই দেশি কোচ। ঢাকার খালেদ মাহমুদ সুজন। কুমিল্লার মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স নামে প্রথম দুই আসর জিতেছে। চতুর্থ বিপিএল জিতেছে ডায়নামাইটস হিসেবে। সেবার প্রথম অধিনায়ক হিসেবে শিরোপা জেতেন সাকিব। চ্যাম্পিয়ন এই দলের সঙ্গে ছিলেন সুজন। ওদিকে কোচ সালাউদ্দিন কুমিল্লাকে চতুর্থ আসরের শিরোপা জিতিয়েছিলেন। দুই সাবেক চ্যাম্পিয়নের লড়াইয়ের মাঝে দুই কোচের কৌশলের লড়াইও থাকছে।

তবে এটা অলরাউন্ডারদের লড়াইও। ঢাকা সাকিবের সঙ্গে তিন ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারের দল। ওদিকে কুমিল্লা বাংলাদেশ, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডারের দল। দুই দলের ব্যাটিং গভীরতা দারুণ। ঢাকা এই ডায়নামাইটস নামে একবার শিরোপা জিতেছে। কুমিল্লাও জিতেছে একবার। তাই আজকের ফাইনাল আসলে দুই দলেরই দ্বিতীয়বার বিপিএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইও।
ঢাকা ফেভারিটের মতো শুরু করে টানা চার ম্যাচ জিতে হারতে শুরু করল। শেষ পর্যন্ত চতুর্থ দল হিসেবে শেষ চারে উঠেছিল। ১২ ম্যাচের ছয়টি জিতেছিল। আর কুমিল্লা বেশ একটা ধারাবাহিকতা দেখিয়ে ১২ ম্যাচের আটটি জিতে কোয়ালিফায়ারে আসে। পয়েন্ট টেবিলে রংপুরের সমান পয়েন্ট হলেও নেট রানরেটে দ্বিতীয়সেরা দল হয়েছিল। এরপর প্রথম কোয়ালিফায়ারে তারা হারায় শীর্ষ দল রংপুরকে। দ্বিতীয় সুযোগ পাওয়া গেলবারের চ্যাম্পিয়নদের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে হারিয়ে ফাইনালে ঢাকা।
এখন দেখার শেষ হাসিটা কার।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত