মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

চীনে জনপ্রিয় সিরিয়াল বন্ধ যে কারণে

আপডেট : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৩৮ পিএম

চীনে জনপ্রিয় টিভি সিরিয়াল ‘ইয়াংসি প্যালেস’র সম্প্রচার বন্ধ করেছে দেশটির সরকার। রাজকীয় কাহিনী নিয়ে নির্মিত সিরিয়াল গত বছর দেশটির সবচেয়ে জনপ্রিয় শোগুলোর মধ্যে অন্যতম। নেটফ্লিক্সের মতো চীনা অনলাইন প্ল্যাটফরম আইচিইতে প্রকাশের পর মাত্র ৩৯ দিনেই ১৫০০ কোটি বার দেখা হয়, যা আগের সব রেকর্ড ভেঙে দেয়।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে সম্প্রচারের পরপরই ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায় ইয়াংসি প্যালেস। তবে গত জানুয়ারিতে রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র বেইজিং ডেইলিতে এক নিবন্ধ প্রকাশের পর এ সিরিয়ালটির সম্প্রচার বন্ধের উদ্যোগ নেয় সরকার। নিবন্ধটিতে রাজকীয় কাহিনী নিয়ে নির্মিত সিরিয়ালগুলোর সমালোচনা করা হয়।

এতে বলা হয়, এ ধরনের সিরিয়াল সমাজে নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। এগুলো মানুষকে বিলাসী ও ফুর্তিবাজি জীবনযাপনে উৎসাহিত করছে। এ ছাড়া রাজকীয় জীবনযাপনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ তৈরি এবং বর্তমান বীরদের তুলনায় রাজা-বাদশাহদের প্রতি ভক্তি বাড়িয়ে দিচ্ছে। এতে ইয়াংসি প্যালেস ছাড়াও রুয়ি’স রয়েল লাভ ইন দ্য প্যালেস’, ‘স্কারলেট হার্ট’ ও ‘দ্য লেজেন্ড অব মি ইউ’ সিরিয়ালে নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

নিবন্ধের অভিযোগ আমলে নিয়ে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলে ইয়াংসি প্যালেস ও রুয়ি’স রয়েল লাভ ইন দ্য প্যালেসের সম্প্রচার বন্ধ করা হয়। তবে আইচিইতে সিরিয়ালগুলো দেখা যাচ্ছে। এরই মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইয়াংসি প্যালেস জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

সিরিয়াল বন্ধের ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটির চীন নিয়ে গবেষণা করা অধ্যাপক স্ট্যানলি রোজেন বলেন, ‘চীনে এ ধরনের ঘটনা এটাই প্রথম নয়। তবে এখন সেন্সরশিপের ঘটনা আগের চেয়ে বাড়ছে। ইয়াংসি প্যালেসে সমাজতান্ত্রিক ধারণার বিরোধী মূল্যবোধ দেখা যায়, যা চীনা সরকার দেখাতে চায় না।’

তিনি আরও বলেন, সিরিয়ালটির বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তাও চীনা সরকারের জন্য একটি বড় ‘সমস্যা’। তারা চায় না বর্তমান সরকারের মতবাদ ছাড়া চীনের অন্য কোনো মতবাদ বিশ্বব্যাপী প্রচার পাক। এ জন্য দেশটির সরকার র‌্যাপ মিউজিক বা এ ধরনের বিষয়কে উৎসাহিত করে না।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত