শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

খেলনা দিয়ে কৃত্রিম হাত

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০১:১৫ এএম

জন্ম হয়েছিল এক হাত ছাড়া। বড় হয়ে জানতে পারেন জেনেটিকের বিরল এক সমস্যা আছে তার। সেই সমস্যা থামিয়ে রাখতে পারেনি স্পেনের ইউনিভার্সিটি ইন্টারন্যাশনাল দ্য কাতালুনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়ো-ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থী ডেভিড আগুইলারকে। নিজেই বানিয়ে ফেলেছেন নিজের হাত। তাও আবার লেগো খেলনা দিয়ে!

প্লাস্টিকের লেগো শিশুদের জনপ্রিয় একটি খেলনা। টুকরো টুকরো লেগো জুড়ে বাড়ি, মানুষ, প্লেন, গাড়িসহ অনেক কিছু বানানো যায়। ১৯ বছরের আগুইলার এগুলো দিয়ে বানিয়েছেন নিজের ডান হাত।

একটু বুঝতে শেখার পর থেকে আগুইলার নিজের হাত নিয়ে ভাবতেন। অন্যদের সামনে যেতে লজ্জা পেতেন। স্বপ্ন দেখতেন এক দিন তারও অন্যদের মতো দুটি হাত থাকবে। সেই স্বপ্নের কথা শুনিয়েছেন রয়টার্সকে, ‘আয়নায় আমি নিজেকে অন্যদের মতো দেখতে চাইতাম। ছেলেবেলায় মানুষের সামনে যেতে কেমন যেন লাগত। কিন্তু আমার স্বপ্নকে থামিয়ে রাখিনি।’

একহাত ছাড়াও প্রায় স্বাভাবিকভাবেই চলাফেরা করতেন আগুইলার। এখন সব সময় কৃত্রিম হাতটি ব্যবহার করেন না। কেবল দরকার পড়লেই করেন। তিনি মূলত হাত বানাতে চেয়েছেন সেই সব মানুষের জন্য, যারা হাত ছাড়া স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারেন না। এখন পর্যন্ত চারটি হাত বানিয়েছেন তিনি।

আগুইলার হাতগুলোর নামকরণ করেছেন কমিক বুকের সুপারহিরো আয়রন ম্যানের নামানুসারে। তিনি প্রথম হাত বানান ১৮ বছর বয়সে। তখন তাকে লেগোগুলো সরবরাহ করেন তার এক বন্ধু। কৃত্রিম হাতটি আগুইলার ভাঁজ করতে পারেন। শুধু তাই নয়, অনায়াসে কোনো বস্তুও ধরতে পারেন। এর ভেতরে তিনি একটি ইলেকট্রনিক মোটর ব্যবহার করেছেন। আগুইলারের স্বপ্ন আরও বড়। গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে অসহায় মানুষদের জন্য কাজ করতে চান। কৃত্রিম অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বানিয়ে তাদের জীবনকে আরও সহজ করতে চান। ‘আমি বিনামূল্যে অসহায় মানুষকে কৃত্রিম অঙ্গপ্রত্যঙ্গ উপহার দিতে চাই। কোনো কিছুই অসম্ভব নয়, এই বার্তা ছড়িয়ে দিতে চাই সবার মাঝে।’

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত