শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

অপহরণ ও মুক্তিপণ দাবি

গাজীপুরে দুই এএসআই গ্রেপ্তার

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৩:১৮ এএম

গাজীপুরে তিন যুবককে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগে পুলিশ দুই সহকারী উপপরিদর্শককে (এএসআই) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে জেলা পুলিশ সুপার সামসুন্নাহার তার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তার পুলিশ কর্মকর্তারা হলেন গাজীপুরের কালিয়াকৈর থানার এএসআই আবদুল্লাহ আল মামুন ও টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানার এএসআই মুসরাফিকুর রহমান। ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শুক্রবার কালিয়াকৈর থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী রায়হান সরকার। সামসুন্নাহার জানান, অভিযুক্ত দুই এএসআইকে শুক্রবারই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠানো হবে। তিনি বলেন, ‘সদস্যদের অপরাধের দায়ভার বাংলাদেশ পুলিশ নেবে না। অপরাধ করলে কেউ ছাড় পাবে না।’

দেশ রূপান্তরকে রায়হান জানান, গত বুধবার বিকেলে বন্ধু নওশাদ ইসলাম, লাবিব উদ্দিন, তরিবুল্লাহ ও রাকিবুল রহমানকে নিয়ে প্রাইভেটকারযোগে ঢাকায় বাণিজ্যমেলার উদ্দেশে রওনা হন তিনি। গাড়িতে গ্যাস নেওয়ার জন্য তারা কালিয়াকৈরের সূত্রাপুর এলাকায় শিলা-বৃষ্টি ফিলিং স্টেশনে থামেন। এ সময় তরিবুল্লাহ ও রাকিবুল গাড়ি থেকে নেমে পাশের দোকানে চা খেতে যান। প্রাইভেটকারটি গ্যাস নিয়ে ফিলিং স্টেশনের কাছে থাকাবস্থায় সাদা পোশাকে এএসআই মামুন তার ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে পাম্পের সামনে আসেন। তিনি ও এএসআই মুসরাফিকুরসহ ৫-৬ জন লোক রায়হান, লাবিব ও নওশাদকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে তুলে মির্জাপুরের দিকে নিয়ে যায়। তাদের মির্জাপুরের দেওড়া এলাকায় নির্মাণাধীন উড়াল সড়কের নিচে বসিয়ে রেখে মুক্তির জন্য ৩০ লাখ টাকা দাবি করেন দুই পুলিশ কর্মকর্তা। টাকা না দিলে ক্রসফায়ারের হুমকি দেওয়া হয়। দেনদরবারের একপর্যায়ে পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, ১০ লাখ টাকা দিলেই তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে কালিয়াকৈর থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন মজুমদার জানান, অপহরণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া তরিবুল্লাহ ও রাকিবুল মোবাইল ফোনে তাদের পরিবার ও কালিয়াকৈর থানার পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। তাৎক্ষণিকভাবে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। পরে দুই থানার সহযোগিতায় অপহৃত তিন যুবককে উদ্ধার করে প্রথমে মির্জাপুর থানায় এবং পরে বুধবার রাত ১২টার দিকে কালিয়াকৈর থানায় আনা হয়। ঘটনাটি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হলে বৃহস্পতিবার দুপুরে অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করে নিজ নিজ পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত