রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

আহমদ ছফা পুরস্কার পাননি, মরে গিয়ে সবাইকে বিপদে ফেলে দিয়েছেন

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪:০১ এএম

সাদাসিধে কথার বিনয়ী এক নাম অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল। বাংলাদেশে বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি লেখা এবং তা জনপ্রিয় করার পথিকৃৎ মনে করা হয় তাকে। তার বেশ কয়েকটি কিশোর উপন্যাস চলচ্চিত্রে রূপায়িত হয়েছে। এবারের বইমেলা নিয়ে তিনি কথা বলেছেন দেশ রূপান্তরের সঙ্গে। সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন মদিনা জাহান রিমি

দেশ রূপান্তর : স্যার, এখনকার সাহিত্য পুরস্কারগুলো বিতর্কিত বলে অনেকে মনে করেন এ নিয়ে আপনার মতামত কী?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : মতামত দিলে আমিও ফাঁদে পা দিয়ে ফেলব। কারণ আমিও একটি-দুটি সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছি। আমি মনে করি, কথাটির মধ্যে সত্যতা আছে। সাহিত্যিকরা যখন পুরস্কারের জন্য ধরাধরি করেন, এর চেয়ে বড় অস্বস্তিকর ব্যাপার হতে পারে না। পুরস্কারের ব্যাপারটা বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখার কিছু নেই। আহমেদ ছফা বাংলা একাডেমি পুরস্কার পাননি। মরে গিয়ে সবাইকে বিপদে ফেলে দিয়েছেন! এখন কেউ পুরস্কার দিয়ে লজ্জা মোচন করতে পারছে না।

দেশ রূপান্তর : আজ (৮ ফেব্রুয়ারি) এবারের বইমেলায় প্রথম এলেন, কেমন লাগল আয়োজন?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : খুবই ভালো। খোলামেলা পরিবেশ। হাঁটার জায়গা আছে, বসারও জায়গা আছে। বিশেষ করে পানির কাছে ‘লেখক বলছি’ মঞ্চ থেকে মেলার আনন্দটুকু নিতে বেশি ভালো লাগছে। তবে স্পনসরদের বিজ্ঞাপনের বাড়াবাড়িটা না থাকলে আমার কোনো অভিযোগই থাকত না।

দেশ রূপান্তর : আপনার প্রিয় লেখক মার্ক টোয়েন আর বাংলাদেশের অধিকাংশ তরুণ পাঠকের প্রিয় লেখক আপনি। মেলায় এলে তারা আপনাকে ঘিরে ধরেন, কতটুকু বিরক্ত হন?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : ছি ছি ছি! বিরক্ত কেন হব? বরং আমার কিছুটা লজ্জা ও দুঃখ হয়। কারণ আমি মার্ক টোয়েনের মতো বড় একজন লেখকের মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়েছি, আর তোমাদের অনুপ্রাণিত হতে হচ্ছে আমার মতো জোড়াতালি দেওয়া লেখক দিয়ে।

দেশ রূপান্তর : বইমেলা থেকে নতুন লেখকদের বই কেনেন?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : পৃথিবীতে কেউ-ই একজন অচেনা মানুষের অপরিচিত একটা বই কেনে না। তবে বিজ্ঞাপন দিয়ে ঘোল খাওয়াতে পারলে ভিন্ন কথা। তবে ভালো বই কিছু কেনা হয়। একটা সময় ছিল, যখন তরুণ লেখক ভালো কি না, বুঝতে পারা কঠিন ছিল। আজকাল সোশ্যাল নেটওয়ার্ক থাকায় একদম তরুণ লেখক, ভালো লেখক হিসেবে পরিচিতি পেতে পারে। তবে তরুণ লেখকদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই, এখনকার জনপ্রিয় লেখক একদিন তরুণ নতুন লেখকই ছিলেন। তাই লেখালেখিতে আগ্রহ থাকলে, ভালো লিখলে, আগে-পরে একদিন তারাও পরিচিত হবে।

দেশ রূপান্তর : আপনার নিজের কোন রচনাটি আপনার প্রিয়?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : এর উত্তর দেওয়া খুব কঠিন। তবে অনেক আগের লেখা পড়ে কখনো মনে মনে হাসি আবার কখনো নিজের পিঠে নিজেই থাবা দিই। বাচ্চারা আমার লেখার জন্য অপেক্ষা করে, তাদের নিরাশ করতে চাই না বলে লিখছি। লেখালেখি বিষয়টা নিজের ওপর সীমাবদ্ধ থাকলে এখন লেখা বন্ধ করে শুধু পড়তাম।

দেশ রূপান্তর : আপনার এমন কী স্বপ্ন আছে, যা এখনো পূরণ হয়নি?

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : অসংখ্য! আমি হিসাব করে দেখেছিÑ আমার জীবনে সাফল্য অনেক কম, হাতে গোনা যায়। অথচ ব্যর্থতা শত শত। এই সবগুলো ব্যর্থতা তো একসময় স্বপ্নই ছিল। আসলে এখনো সেগুলো স্বপ্নই ‘আছে’।

দেশ রূপান্তর : স্যার, আপনাকে দেশ রূপান্তরের পক্ষ থেকে ‘কপোট্রনিক’ ধন্যবাদ।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল : (হাসি) ভালো থেকো।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত