শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১
দেশ রূপান্তর

কিশোরগঞ্জ-১ আসনে পুনর্নির্বাচন

লিপি-দোলন-মোস্তাইন প্রার্থী এখন তিন

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:২৩ পিএম

কিশোরগঞ্জ-১ (সদর ও হোসেনপুর) আসনে নির্বাচনের জন্য আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন গণতন্ত্রী পার্টির প্রার্থী অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন এবং জাতীয় পার্টির মো. মোস্তাইন বিল্লাহ। আগে থেকে জেলা নির্বাচন কমিশনের হিসাবে বৈধ প্রার্থী হিসেবে আছেন আওয়ামী লীগের ডা. জাকিয়া নূর লিপি। ফলে এখন ভোটারদের কাছে নৌকা, কবুতর এবং লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চাইতে যাবেন তিনজন। আসনটিতে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পুনর্নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে।

জেলা নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম থাইল্যান্ডে চিকিৎসাধীন থেকেও বিপুল ভোটের ব্যবধানে কিশোরগঞ্জ-১ আসন থেকে টানা পঞ্চমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। কিন্তু শপথ নেওয়ার আগেই গত ৩ জানুয়ারি থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুতে আসনটিতে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে গত ২২ জানুয়ারি পুনর্নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী গত ৩১ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় পর্যন্ত তিন প্রার্থী আওয়ামী লীগ (নৌকা) মনোনীত ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি, গণতন্ত্রী পার্টির (কবুতর) অ্যাডভোকেট ভূপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন এবং জাতীয় পার্টির (লাঙ্গল) মো. মোস্তাইন বিল্লাহ মনোনয়নপত্র জমা দেন। কিন্তু গত ৩ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি’র মনোনয়নপত্র বৈধতা দিয়ে বাকি দুই প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন। পরে ৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের আইন শাখায় ভূপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন এবং ৬ ফেব্রুয়ারি মো. মোস্তাইন বিল্লাহ আপিল আবেদন জমা দেন। এরপর ৭ ফেব্রুয়ারি আবেদন দুটির পৃথক শুনানি শেষে নির্বাচন কমিশন দুজনের মনোনয়নপত্রই বৈধ ঘোষণা করেন। ফলে এই আসনের নির্বাচনী লড়াইয়ে ফিরলেন দোলন এবং মোস্তাইন।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত আলোচিত